৩৪ বছর বয়সী সাবেক মডেল ক্যাথরিন মায়োরগা ধর্ষণ মামলা থেকে মুক্তি পেলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। সোমবার এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে তাকে মামলা থেকে অব্যাহতি দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রসিকিউটর।

রোনালদোর বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল ২০০৯ সালে লাস ভেগাসে একটি হোটেল জোরপূর্বক যৌন সম্পর্ক স্থাপন করার। পরবর্তীতে পর্তুগিজ অধিনায়ক অর্থের (৩ লাখ ৭৫ হাজার ডলার) বিনিময়ে কোর্টের বাইরে সঙ্গে মায়োরগাার সঙ্গে সমঝোতা করেন। যাতে তিনি এ ব্যাপারে আর মুখ না খোলেন।

তবে ২০১৮ সালে ‘হ্যাশট্যাগ মি টু’ আন্দোলনের পরই এ নিয়ে কথা বলার সাহস ফিরে পান মায়োরগা। আগষ্টে ফের মামলা চালু করেন তিনি। এ সময় জার্মান সাপ্তাহিক ম্যাগাজিক দ্যর স্পাইগেলে এ ধর্ষণ মামলার বিপক্ষে গত বছর একটি আর্টিকেল ছাপা হয়েছিল। কিন্তু বরাবরই এমন অভিযোগ অস্বীকার করে আসা রোনালদো জানিয়েছিলেন, দু’পক্ষের সম্মতিতেই শারীরিক সম্পর্ক হয়েছিল।

লম্বা সময় ধরে এই কেস চলার পর অবশেষে সোমবার (২২ জুলাই) এক বিবৃতিতে লাস ভেগাস প্রসিকিউটর জানান, রোনালদোর বিরুদ্ধে শক্ত কোনো প্রমাণ না থাকায় তাকে চার্জ করা হচ্ছে না।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, সেই সময়কার তথ্যের পর্যালোচনার ওপর ভিত্তি করে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগের সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হয়নি। এ কারণে তাঁর বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ আনা হচ্ছে না।

রোনালদোর আইনজীবী শের্টৎজ অবশ্য বলেছেন, ‘নৈতিকভাবে খেলোয়াড়টি যে ক্ষতি সাধিত হয়েছে, তার ক্ষতিপূরণ চাওয়া হবে’ সংবাদমাধ্যমটির কাছে।

মন্তব্য: