১১ দফা দাবি নিয়ে আজ সন্ধ্যা ৬টায় গুলশানে একটি হোটেলে প্রথমে বৈঠক করে আন্দোলনকারী ক্রিকেটাররা। সেখানে তারা ব্যরিস্টার মুস্তাফিজুর রহমান নামে সুপ্রিম কোর্টের এক আইনজীবীকে মুখপাত্র হিসেবে নিয়োগ দেয়। তিনি সংবাদ সম্মেলনে ক্রিকেটারদের নিয়ে উপস্থিত হয়ে কথা বলেন। কিন্তু সেখানো জানানো হয়নি, বিসিবির সঙ্গে ক্রিকেটাররা আলোচনা করতে যাবেন কি না।

যদিও সংবাদ সম্মেলনের শেষ মুহূর্তে এসে সাকিব আল হাসান মাইক্রোফোন নিয়ে জানিয়ে দিলেন, তারা বিসিবির সঙ্গে আলোচনায় বসতে রাজি। তবে কখন তারা বিসিবিতে যাবেন সেটা আলোচনা করেই সিদ্ধান্ত নিতে চান।

সেই সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্যই আবারও তারা গুলশানে হোটেলেই বৈঠকে বসেন। ক্রিকেটারদের একটি সূত্রই জানিয়েছেন, উপস্থিত সব ক্রিকেটার নন, সিনিয়র ক্রিকেটারদের বেশ কয়েকজন বৈঠকে বসেন আলোচনা করার জন্য।

বিকেল থেকেই মূলত সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনসহ কর্মকর্তারা মিরপুরে বিসিবি কার্যালয়ে ক্রিকেটারদের অপেক্ষায় রয়েছেন। সাকিব-তামিমরা বিসিবির সঙ্গে আলোচনায় যোগ দিতে যাবেন এ লক্ষ্যে যত রাতই হোক বিসিবিতে তারা অপেক্ষা করবেন বলে জানা গেছে।

এ কারণেই মূলত সংবাদ সম্মেলন শেষ করার পর আবারও বৈঠকে বসে সাকিব-তামিম-রাজ্জাকরা। সেখানেই তারা সিদ্ধান্ত নেবেন, আজই বোর্ডে গিয়ে আলোচনায় বসবেন, নাকি আগামীকাল তারা যাবেন। কিংবা কখন বিসিবিতে যাবেন- সে সময়টা তারা নির্ধারণ করবেন এই বৈঠকে।

এদিকে বিসিবি জানিয়েছে, পরবর্তী করণীয় ঠিক করতে গোপন বৈঠকে বসেছে ক্রিকেটাররা। তবে কখন নাগাদ শেষ হবে সে সম্পর্কে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

মন্তব্য: