স্বাগতিক দল আর হট ফেভারিটের তকমা গায়ে লাগিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করেছিল ইংল্যান্ড দল। ২০১৫ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সাথে ম্যাচ হেরে সে আসর থেকে বিদায় নেওয়ার পরের বছরগুলোতে এক অনবদ্য দলে পরিণত হয়েছিল তারা। ওয়ানডে র্যাংকিংয়ে ১ এ থেকে এবারের বিশ্বকাপ শুরু করেছে ইংল্যান্ড। বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার ৬ মাস আগে নাসের হুসাইন বলেছিলেন কাপটা এবার ইংল্যান্ডকে আগেই দিয়ে দেওয়া হোক।

কিন্তু বিশ্বকাপ মঞ্চ বলে কথা যেখানে চাপ ও প্রত্যাশা দুইটাই চূড়ার শিখরে।সবাই যেখানে ভেবেছিলো সবাইকে নাস্তানাবুদ করবে টিম ইংল্যান্ড সেখানে তাদের সেমি নিয়েই এখন টানাটানি। ৭ ম্যাচে ৪ জয় ও ৩ পরাজয় নিয়ে এই মূহুর্তে পয়েন্ট টেবিলের ৬ আছে ইংলিশরা। হাতে বাকি দুই ম্যাচ।প্রতিপক্ষ ইন্ডিয়া,নিউজিল্যান্ড। অন্যদের ম্যাচের ফলাফলের দিকে না তাকাতে হলে দুটি জয় ই চাই তাদের। কিন্তু শ্রীলঙ্কার যেখানে সহজ প্রতিপক্ষ ছিলো সে ম্যাচের হার ই ডুবাচ্ছে ইংল্যান্ড কে।

তাদের এমন পারফরমেন্স যেমন অবাক সাবেক ইংলিশ ক্রিকেটার ও গোটা ক্রিকেটবিশ্ব সেখানে কোহলি কেন বাদ যাবেন। আজ মুখোমুখি হচ্ছে ইন্ডিয়া ইংল্যান্ড। আর ঠিক সেই ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে কোহলি ইংল্যান্ডের পারফর্মেন্স তার বিস্ময়ের কথা জানালেন।

তিনি বলেছেন,”সবাই একটু অবাক। আমরা ভেবেছিলাম, নিজেদের কন্ডিশনে অন্য সবদলকে দমন করে জিতবে ইংল্যান্ড। কিন্তু আমি আগেও যেটা বলেছিলাম, বড় টুর্নামেন্টে চাপ অনেক বড় ভূমিকা রাখে। এখানে প্রতিটা দলই শক্তিশালী। সবাই সবাইকে হারানোর সামর্থ্য রাখে।’

আর সেই চাপেই বার বার ভরাডুবিতে পরে ইংলিশরা। তারা কি পারবে ঘরের মাঠে প্রথম বিশ্বকাপ ছুঁয়ে দেখার স্বাদ নিতে।নাকি চাপ সহ্য না করতেপেরে গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিতে হবে তাদের?তবে সে স্বপ্ন ছুঁতে হলে যে অনেক কঠিন পরীক্ষাই দিতে হবে ইংলিশদের।

মন্তব্য: