অনেকদিন ধরেই ছন্দে ছিলেন না কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমান। তবে বিশ্বকাপের আগে ভারতের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচের পরই টাইগার অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার কণ্ঠে ঝরেছিল মোস্তাফিজুর রহমানের ছন্দে ফেরার আভাসের তৃপ্তি।

এ আশার পালে আরও হাওয়া দিয়েছেন টাইগারদের বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশও। আশার খবর হলো, ধীরে ধীরে সেই পুরনো ছন্দ ফিরে পাচ্ছেন মুস্তাফিজ।

কাঁধের ইনজুরি কাটিয়ে সেরা ছন্দে ফিরতে সময় লাগলেও, মোস্তাফিজ সঠিক পথেই আছে বলে জানান ওয়ালশ। শুক্রবার ওভালে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘সে ইনজুরিতে পড়ার পর প্রথম দিন থেকেই আমি বলছিলাম, এটি কাটিয়ে উঠতে সময় লাগবে। আবার শক্তি ফিরে পেতে ও পুরো ম্যাচ ফিট হতে সময় লাগবে অনেক। যেভাবে উন্নতি হচ্ছে, সে সঠিক পথেই আছে।’

ওয়ালশ আরও বলেন, ‘অনেকেই বলছে, মনে হয় সে আর আগের জায়গায় ফিরতে পারবে না। এক্ষেত্রে বুঝতে হবে, ক্রিকেটে খারাপ দিন, ভালো দিন আসবেই। কিন্তু মানসিকতা ও শারীরিক ফিটনেসের দিক থেকে, তার যে ধরনের ইনজুরি হয়েছিল, সম্ভবত এখন সে আগের চেহারায় ফিরতে শুরু করেছে।’

ওয়ালশ জানান, সময়ের সঙ্গে সঙ্গে নিজের স্বাভাবিক রূপটা ফিরে পাচ্ছেন মোস্তাফিজ। বেশ গুরুতর ইনজুরি কাটিয়ে এ অবস্থায় ফেরাটা আশা জাগাচ্ছে টাইগারদের বোলিং কোচের।

ওয়ালশ আরো বলেন, ফিটনেস বাড়ার সঙ্গে আত্মবিশ্বাসও বাড়ছে। তার সহজাত শক্তি ফিরে আসছে। মনে রাখতে হবে, ইনজুরিটা ছোট ছিল না। ওকে ঠিক পথে এগোতে দেখে ভালো লাগছে। আশা করি, বিশ্বকাপ যত এগোবে, তার সেরাটাও আস্তে আস্তে দেখা যাবে। তার বোলিং বেশ ভালো হচ্ছে। সব সময়ই নিজের খেলায় উন্নতি করতে চায়। আমি খুশি যে সে সেরা সময়ে ফেরার পথেই আছে।

এমনিতে পরিসংখ্যান ঠিকই বলছে উইকেট শিকার বা রান আটকে রাখার ক্ষেত্রে এখনো বাংলাদেশ দলের অন্যতম সেরা বোলার মুস্তাফিজ। বিশ্বকাপে ভালো করতে হলে মুস্তাফিজের ধারাবাহিক পারফরম্যান্সের বিকল্প নেই। তাই তার ছন্দে ফেরার অপেক্ষায় রয়েছে পুরো দল।

মন্তব্য: