ক্রিকেট ইতিহাসে গ্রেট ফিনিশার খ্যাত ধোনি যতক্ষণ ক্রিজে আছেন ততক্ষণ বেঁচে আছে ম্যাচ, আশা আছে জয়ের, আশা আছে ফাইনাল খেলার। আশা থাকবেই না বা কেন? রান তাড়া করতে নেমে ধোনি অপরাজিত আছেন এমন ম্যাচ সংখ্যা ৫১ টি যার ৪৭ টি তেই জিতেছে ভারত, ২ টি তে হেরেছে আর বাকি দুইটির একটি ড্র ও একটি পরিত্যক্ত। ইতিহাসও কথা বলে ধোনিকে কেন গ্রেট ফিনিশার বলা হয়।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সেমিফাইনালে ২৪০ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে প্রথম পাওয়ার প্লেতে ২৪ রানেই ৪ উইকেট নেই ভারতের। বাকি ১০০ রান না পেরোতেই উইকেট পরে গেছে ৬ টি। আর সেই মূহুর্তে দলের পুরো দায়িত্ব কাঁধে নিলেন ধোনি-জাদেজা। ধোনি এক প্রান্তে উইকেট ধরে রেখে খেলে নিলেন। প্রায় হেরে যাওয়া ম্যাচের প্রাণ ফেরালেন। যেমন একটি জয় এনে দিয়েছিলেন ২০১১ বিশ্বকাপের ফাইনালে তার দুর্দান্ত ফিনিশিংয়ে।

তাই যতক্ষণ ধোনির উইকেটটি আছে ততক্ষণ ভরসা আছে। কিন্তু বরাবরের মত নায়ক হতে পারলেন না ধোনি। সব আশা গুড়েবালি করে গাপ্টিলের অসাধারণ এক থ্রো তে রান আউট হয়ে ৭২ বলে ৫০ রান করেই সাজঘরে ফিরতে হয় তাকে। নিজের ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন কোনো বল না খেলেই রান আউট হয়ে। হয়তো নিজের ক্যারিয়ারের ইতিও টানলেন রান আউট হয়েই। সেজন্যই হয়তো নিজের আবেগ আর কান্নাকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারলেন না। তার কান্নাতে ভেঙে পরলো রোহিত শর্মাও। কেননা এখন পর্যন্ত টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী এই রোহিতি। আর ধোনি রোহিতের সাথে কেঁদে উঠলো ভারতীয় সমর্থকরা।

মন্তব্য: