বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে তিনটি দল একত্রে ব্যস্ত থাকার মতো ঘটনা এর আগে ঘটেছে কখনো? এ মাসের ২০ তারিখ শ্রীলংকায় যাবে বাংলাদেশ। সফরে ২৬, ২৯ ও ৩১ জুলাই তিনটি আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ম্যাচে শ্রীলংকার মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল।

ইতিমধ্যে আফগানদের বিপক্ষে মাসব্যাপী সিরিজ খেলছে বাংলাদেশ “এ” দল। যে দলের নেতৃত্বে রয়েছেন ইমরুল কায়েস।

এদিকে ভারতের মিনি রঞ্জি ট্রফিতে অংশ নিতে আজ দেশ ছেড়েছে “বিসিবি একাদশ”। মূলত জাতীয় দলের আশেপাশে থাকা ক্রিকেটারেরাই জায়গা পেয়েছেন বিসিবি একাদশে।

বিসিবি একাদশ: তাসকিন আহমেদ, তাইজুল ইসলাম, সাদমান ইসলাম, আবু জায়েদ চৌধুরী, নাজমুল হাসান শান্ত, মুমিনুল হক, এবাদত হোসেন, রবিউল হক, জহুরুল ইসলাম, আরিফুল হক, ইয়াসির আলী চৌধুরী, মোহাম্মদ সাইফ হাসান, নাঈম হাসান, নুরুল হাসান, শহীদুল ইসলাম।

দলটা যথেষ্ট শক্তিশালী। জাতীয় দলের আশেপাশে থাকা ক্রিকেটাররা জায়গা পেয়েছেন এই দলে। কার্যত আফগানিস্তান “এ” দলের বিপক্ষে বাংলাদেশ “এ” দলের স্কোয়াডটা তৃতীয় সারির বলা চলে। অনেক প্রশ্ন ছিলো কেনো সেখানে সাদমান, সাইফ হাসান, তাসকিন, তাইজুল, নাঈমরা জায়গা পাননি। অবশেষে মিললো উত্তর। মূলত মিনি রঞ্জিতে শক্তিশালী দল পাঠাতেই আফগানিস্তান “এ” দলের বিপক্ষে মোটামুটি মানের একটা স্কোয়াড দিয়েছে বিসিবি।

আফগানদের বিপক্ষে বাংলাদেশ “এ” দল: ইমরুল কায়েস, এনামুল হক বিজয়, নাঈম শেখ, জাকির হোসেন, আফিফ হোসেন, রকিবুল হাসান, তানভীর হায়দার চৌধুরী, জাকির আলি অনিক, সালাউদ্দিন শাকিল, কামরুল ইসলাম রাব্বি, ইরফান হোসেন, সানজামুল ইসলাম, সুমন খান, তানভীর ইসলাম।

এই দলে ইমরুল কায়েস, এনামুল হক বিজয়, জাকির হাসান, আফিফ ও সানজামুল বাদে উল্লেখ করার মতো কোনো ক্রিকেটার নেই। সুতরাং বলা চলে আফগানিস্তান “এ” দলের বিপক্ষে সিরিজের চেয়ে ভারতের মিনি রঞ্জিতে অংশ নিতে যাওয়া “বিসিবি একাদশকে” বেশি গুরুত্ব দিয়েছে বিসিবি।

১৬টি দল চারটি জোনে বিভক্ত হয়ে খেলবে এই টুর্নামেন্ট। প্রতি জোন থেকে শীর্ষ দল উঠবে সেমিফাইনালে। বিসিবি একাদশ স্থান পেয়েছে ‘বি’ জোনে। বিসিবি একাদশের সঙ্গে এই জোনে আরও আছেন সদ্য রঞ্জি জয়ী বিদর্ভ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন, কর্ণাটক রাজ্য ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন একাদশ ও ডক্টর ডি.ওয়াই. পাতিল ক্রিকেট অ্যাকাডেমি। জুলাই মাসের ১০ তারিখ থেকে শুরু হতে যাওয়া এই টুর্নামেন্টটি শেষ হবে আগস্টের ছয় তারিখে। বেঙ্গালুরু ও মাইসোরের কিছু ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত হবে টুর্নামেন্টের ম্যাচ গুলি।

সাধারণত এই টুর্নামেন্ট থেকে ভারতের ভবিষ্যৎ রঞ্জি ক্রিকেটাররা উঠে আসে বিধায় মূল রঞ্জি দলগুলোর মতো এই টুর্নামেন্টে অংশ নেওয়া দলগুলো খুব বেশি শক্তিশালী হয় না। আশা করা হচ্ছে চ্যাম্পিয়ন হয়েই ফিরবে বিসিবি একাদশ।

মন্তব্য: