পাঁচ ম্যাচ সিরিজের রবিবার রাত শেষটিতেও পাকিস্তানকে হারিয়ে দিলো ইয়ন মরগানের দল৷ নিয়মরক্ষার ম্যাচে পাকিস্তানকে ৫৪ রানে ৪-০ তে সিরিজ জিতে নিলো ইংল্যান্ড। এর আগে সিরিজের প্রথম ওয়ানডে বৃষ্টিতে পরিত্যাক্ত হয়েছিল। ম্যাচের সেরা হয়েছেন ওকস৷ সিরিজ সেরা জেসন রয় ৷

হেডিংলে’তে টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নামে ইংল্যান্ড৷ নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ৩৫১ রান তোলে তারা৷ ইংল্যান্ডের প্রথম ৬ ব্যাটসম্যানের সবাই রান পেয়েছেন এবং মোটামুটি সবাই ছিলেন ভয়ংকর চেহারায়। দুই ওপেনারের মধ্যে জেমস ভিন্স ৩২ বলে ৩৩ আর জনি বেয়ারস্টো ২১ বলে ৩২ করে আউট হন।

দ্বিতীয় উইকেটে ১১৭ রানের বড় জুটি গড়েন জো রুট আর ইয়ন মরগান। দুজনই করেছেন হাফসেঞ্চুরি। মরগান ৬৪ বলে ৪ বাউন্ডারি আর ৫ ছক্কায় ৭৬ রান করে ফিরলে ভাঙে এই জুটি।

সেঞ্চুরির পথে এগিয়ে যাচ্ছিলেন রুট। কিন্তু ৭৩ বলে ৯ বাউন্ডারিতে ৮৪ রানে পৌঁছার পর মোহাম্মদ হাসনাইনের শিকার হন তিনি। জস বাটলার ৩৪ বলে ৩৪ আর বেন স্টোকস ২৯ বল খেলে করেন ২১ রান।

শেষদিকে টম কুরানের ১৫ বলে হার না মানা ২৯ রানে সাড়ে তিনশো পার করে ইংল্যান্ড। ২টি করে চার ছক্কা হাঁকান কুরান।

আফ্রিদি ১০ ওভারে ৮২ রান খরচ করলেও ৪টি উইকেট নিয়েছেন ৷ ইমদ ওয়াসিম নিয়েছেন ৫৩ রানে ৩ উইকেট ৷ একটি করে উইকেট পেয়েছেন হাসান আলি ও মোহম্মদ হাসনাইন ৷

জবাবে ব্যাট করতে নেমে পাকিস্তান ৪৬.৫ ওভারে ২৯৭ রানে অলআউট হয়ে যায় ৷ পাকিস্তানের হয়ে বাবর আজম ৮০ ও সরফরাজ ৯৭ রান করেন ৷ সরফরাজ দূর্ভাগ্যজনক রান-আউট হয়ে ক্রিজ ছাড়েন ৷ বাকিরা তেমন একটা যোগদান রাখতে পারেননি ৷

ক্রিস ওকস একাই পাক ব্যাটিং লাইনআপের মেরুদণ্ড ভেঙে দেন ৷ ক্রিস ওকস ৫৪ রানের বিনিময়ে একাই ৫টি উইকেট দখল করেন ৷ ২টি উইকেট নিয়েছন আদিল রশিদ ৷ একটি উইকেট উইলির ৷

এ হারে টানা ১০ ম্যাচ জয়হীন রইল সরফরাজ আহমেদের দল। তারা ইংল্যান্ড সফরে যাওয়ার আগে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষেও হোয়াইট ওয়াশ হয়েছিল। অন্যদিকে টানা ১১ সিরিজ জিতে নিল আসন্ন বিশ্বকাপের স্বাগতিক দেশ ইংল্যান্ড।

মন্তব্য: