বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচে আজ মুখোমুখি হয়েছে স্বাগতিক ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকা। বাংলাদেশ সময় বিকাল ৩.৩০ মিনিটে টসে জিতে ইংল্যান্ডকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিস। জবাবে ব্যাট করতে নেমে সম্পূর্ণ ৫০ ওভার খেলে ৮ উইকেট হারিয়ে ৩১১ রান সংগ্রহ করে ইংলিশরা।

শুরুটা মোটেই ভালো হয়নি ইংলিশদের। রানের খাতা না খুলেই ইনিংসের প্রথম ওভারের দ্বিতীয় বলে তাহিরের শিকারে পরিণত হন জনি বেয়ারস্টো। এরপর জো রুট ও জেসন রয় দলের হাল ধরেন। তাদের ১০৬ রানের জুটিতে প্রাণ ফিরে পায় ইংল্যান্ড। দুজনেই হাফ সেঞ্চুরি করে আউট হলে আবার অশনি সংকেত দেখা দেয় ইংল্যান্ডের উপর।

ফিকোয়াওয়ের বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে ৫১ বলে ৭ চারে হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করা জেসন রয় ডু প্লেসিসের হাতে ধরা পড়েন ৫৪ রান করে। অন্যদিকে ৫৬ বলে ৫ চারে ৫১ রান করা জো রুট রাবাদার বলে ডুমিনিকে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন।

এরপর অধিনায়ক ইয়ন মরগান ও স্টোকস দলের হাল ধরেন। তাহিরের বলে মার্করামের হাতে ধরা পড়ার আগে ৪ চার ও ৩ ছয়ে ৫৭ রান করেন তিনি। অন্যদিকে ৪৫ বলে ৬ চারে হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করেন স্টোকস। এরপরের তিনটি উইকেট দ্রুতই হারায় ইংল্যান্ড। এনগিদির বলে বোল্ড হয়ে ১৮ রান করে ফিরেন বাটলার। এরপর এনগিদির দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন মঈন আলী। তিনি ৩ রান করে প্লেসিসের দুর্দান্ত ক্যাচে সাঝঘরে ফিরেন। আর ১৩ রান করে ডু প্লেসিসের হাতে ধরা পড়ে রাবাদার দ্বিতীয় শিকার হন ওকস।

এরপর এনগিদির তৃতীয় শিকারে পরিণত হয়ে ৮৯ রান করা স্টোকস। শেষ অবধি প্ল্যাঙ্কেট ৯ ও আর্চার ৭ রানে অপরাজিত ছিলেন। জয়ের জন্য দক্ষিণ আফ্রিকার প্রয়োজন ৩১২ রান।

আফ্রিকার হয়ে এনগিদি ৩টি, রাবাদা ও তাহির ২টি করে এবং ফিকোয়াওয়ে একটি উইকেট লাভ করেন।

মন্তব্য: