ক্রিকেটের তীর্থভূমি খ্যাত লর্ডসে সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে রবিবার বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩.৩০ মিনিটে শুরু হতে যাচ্ছে আইসিসি ওয়ানডে বিশ্বকাপের ১২ তম আসরের ফাইনাল ম্যাচ। ফাইনালে মুখোমুখি হবে স্বাগতিক ইংল্যান্ড আর বর্তমান রানার্সআপ নিউজিল্যান্ড।

এর আগে কখনো কাপ জেতেনি দু’দলের কেউই। তাই কালকের ম্যাচে দু’দলই চাইবে বিশ্বকাপের রাজার মুকুটটা নিজেদের করে নিতে। তবে যে দলই জিতুক না কেন ২৩ বছর পর ক্রিকেট বিশ্ব নতুন এক চ্যাম্পিয়নকে পাবে।

ইয়ান মরগানের ইংল্যান্ড আছে দারুন ফর্মে। নিজেদের মাঠে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপ ঘরেই রাখতে চাইবেন তারা। ওপেনার জেসন রয় আর বেয়ারস্ট্র আছেন ফর্মের তুঙ্গে। সাথে নাম্বার তিনে ব্রিটিশদের ব্যাটিং স্তম্ভ জো রুট আছেন যিনি এই আসরে সেরা রান সংগ্রাহকের তালিকায় ৪ নাম্বারে আছেন।

মিডল অর্ডারে আরো আছেন বিধ্বংসী দলনেতা মরগান আর উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান জস বাটলার। ব্যাটিং অলরাউন্ডার স্টোকসের সাথে আছে বোলিং অলরাউন্ডার ক্রিস ওকস। আর বোলিং লাইনআপে আছেন রিস্ট স্পিনার আদিল রশিদ, স্পিডস্টার জোফরা আর্চার, মার্ক উড এবং লিয়াম প্লানকিট।

অন্যদিকে উইলিয়ামসনের নেতৃত্বে থাকা নিউজিল্যান্ড গ্রুপ পর্ব এবং সেমিফাইনালে কঠিন পরীক্ষার সম্মুখীন হওয়া দল। তারাও চাইবে ২০১৫ ফাইনালের গ্লানি মুছে প্রথমবারের মত কাপ ঘরে তুলতে।

এই দলের দুই ওপেনার মার্টিন গাপটিল এবং নিকোলাস ভুগছেন ফর্মহীনতায়। নাম্বার তিনে দলপতি উইলিয়ামসন হাল ধরে এতদূর টেনে এনেছেন দলকে।

যিনি আছেন সেরা রান সংগ্রাহকের তালিকায় ৫ নাম্বারে। মিডল অর্ডারে আছেন অভিজ্ঞ টেলরের সাথে উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান টম লাথাম। দুই ব্যাটিং অলরাউন্ডার জেমস নিশাম এবং কলিং ডি গ্র‍্যান্ডহোম আছেন সুবিধাজনক ফর্মে। বোলিং অলরাউন্ডার মিচেল স্যান্টনারও আছেন দারুন ফর্মে। প্রতিপক্ষের ব্যাটিংয়ে আঘাত আনার জন্য বোলিং লাইনআপে আছেন ম্যাট হেনরি, লুকি ফার্গুসন এবং ট্রেন্ট বোল্টের মত বিধ্বংসী বোলররা।

ব্যাটে বলের লড়াইয়ে কে হবে জয়ী হবে তা আদৌ আন্দাজ করে বলা ঠিক হবে বলে মনে হয়না। চুড়ান্ত ফলাফলের জন্য অপেক্ষা করতে হবে ম্যাচের শেষ পর্যন্ত। তবে আশা করা যায় এবারের আসরের যোগ্য দাবিদার স্বাগতিক ইংল্যান্ডের ঘরেই থাকবে বিশ্বকাপের রাজার মুকুট। নিউজিল্যান্ড হোক বা ইংল্যান্ড অন্তত নতুন চ্যাম্পিয়ন পেতে যাচ্ছে ক্রিকেট বিশ্ব।

মন্তব্য: