জার্সি নিয়ে কম মাতামাতি হয়নি। বিসিবি অফিসিয়াল জার্সি প্রদর্শন করেছে। হয়েছে খেলোয়াড়দের ফটো সেশনও । কিন্তু জার্সি নিয়ে সন্তুষ্ট নন ক্রিকেট প্রেমীরা। প্রথম যে জার্সি তৈরি হয়েছিল তার পুরোটাই সবুজ আর একটা পুরোটাই লাল। ক্রিকেট প্রেমীদের প্রশ্ন শুধু সবুজ আর শুধু লাল কেনো।সবুজ লালের মিশ্রণে জার্সি দেখেই অভ্যস্ত সবাই। তাই তো ঝড় উঠে গেলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও মিডিয়ায়। উপায় না পেয়ে জার্সি বদলের ঘোষণা দেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। সবুজের বুকে লাল ও লালের বুকে সবুজ জার্সি তৈরি করে বিসিবি।

ওয়ানডে ক্রিকেটে সাদা জার্সির যুগ শেষ হয়েছে সেই ২০ বছর আগে। এবার আইসিসি নতুন নিয়ম প্রবর্তন করেছে। ফুটবলের মত প্রতিটি দলেই থাকতে হবে অ্যাওয়ে জার্সি। কোনো খেলায় দুই দলের জার্সির রঙ মিলে গেলে, এক দলকে খেলতে হবে অ্যাওয়ে জার্সি পরে।

সে হিসেবে অন্য সব দলের মতই অ্যাওয়ে জার্সি তৈরি করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। মূল জার্সির রঙ হচ্ছে সবুজের বুকের ওপর লাল এবং তার ওপর সাদা অক্ষরে দেশের নাম লেখা। জার্সির পেছনে রয়েছে সাদা অক্ষরে নাম্বার এবং ক্রিকেটারদের নাম।

আর অ্যাওয়ে জার্সি ঠিক তার উল্টো। পুরোটাই লাল। শুধু বুকের ওপর সবুজ এবং তার মধ্যে সাদা অক্ষরে দেশের নাম লেখা। পিঠের ওপর সাদা অক্ষরে খেলোয়াড়ের নাম ও জার্সি নম্বর।

বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত আটটি ম্যাচ শেষ হয়ে গেছে বাংলাদেশের। এর মধ্যে খেলেছে সাতটিতে। একটি ভেসে গেছে বৃষ্টিতে। এই আট ম্যাচরে একটিতেও অ্যাওয়ে জার্সি পরে খেলতে নামতে হয়নি বাংলাদেশকে। তবে, শেষ ম্যাচটিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে রঙ বদলে যাচ্ছে বাংলাদেশ দলের।

আজ পাকিস্তানের বিপক্ষে লর্ডসে বাংলাদেশ খেলবে অ্যাওয়ে জার্সি, তথা লাল জার্সি পরেই। পাকিস্তানের সঙ্গে বাংলাদেশ দলের মূল জার্সির রঙ প্রায় মিলে যাওয়ার কারণেই আইসিসির নির্দেশনাক্রমে বাংলাদেশ অ্যাওয়ে জার্সি, তথা লাল জার্সি পরেই খেলতে নামবে টাইগাররা।

মন্তব্য: