ত্রিদেশীয় সিরিজে লিগ পর্বের শেষ ম্যাচে বাংলাদেশের বিপক্ষে ফিল্ডিংয়ের সময় হ্যামস্ট্রিং ইনজুরিতে পড়েছেন আফগান অধিনায়ক রশিদ খান। ইনজুরি নিয়ে ম্যাচে বল করলেও আগামী ২৪ সেপ্টেম্বর ফাইনাল ম্যাচে তার খেলা নিয়ে নিশ্চিত নয়।

ইনিংসের নবম ওভার চলাকালীন সময়ে হ্যামস্টিং চোটে পড়েন রশিদ। নবীর করা ওভারের পঞ্চম বলে ফিল্ডিংয়ে দৌড়ানোর সময় বাম পায়ে শিড়ায় টান পড়ে তার। এ সময় তিনি মাঠে লুটিয়ে পড়েন। পরবর্তীতে খোড়গাতে খোড়াতে দ্রুত মাঠ ত্যাগ করেন তিনি।

পরবর্তীতে মাঠে ফিরে ১৪তম ওভারের নিজেকে বোলিংয়ে আনেন। তার করা পরপর দুইটি ওভারে সাব্বির ও আফিফের উইকেট তুলে নেন তিনি। তবে তার করা ইনিংসের ১৮তম ওভারে সাকিব ও মোসাদ্দেক জুটি ১৮ রান নিয়েই ম্যাচটি নিজেদের কবজায় নেয় বাংলাদেশ। তার কাছ থেকে ওভারে বড় রান আদায় করেই এক ওভার হাতে রেখে ম্যাচ জিতে নেয় বাংলাদেশ।

ম্যাচ শেষে পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে রশিদ নিজে বলেন, ‘আশা করছি আমি দ্রুতই ইনজুরি কাটিয়ে উঠতে পারব। এটা এখন খানিক জটিল মনে হচ্ছে। তবে ফাইনালের আগে ঠিক হয়ে যাওয়া উচিৎ। আমি চাচ্ছিলাম যে মাঠে গিয়ে বোলিং করে দেখি, কেমন হয়। আমার মনে হয় এখন ৫০-৬০ ভাগ ঠিক আছে।’

এদিকে ম্যাচ শেষে আফগান দলের ম্যানেজার নাজিম জার আব্দুর রহিম রশিদ খানের ইনজুরি নিয়ে বলেন, ‘আমি এখনই বলতে পারছি না রশিদ খান ফাইনাল খেলতে পারবে কি-না। সে ভালো করছে এবং আমরা অপেক্ষায় আছি সামনে কী হয় দেখার জন্য। আমাদের হাতে ২-৩ দিন সময় আছে। আমি আশা করছি ইনজুরিটা গুরুতর কিছু নয়। সে আমাদের অধিনায়ক এবং দলের অতি গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়। যেকোনো সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে আমরা ভালোভাবে তার ইনজুরির অবস্থা পর্যবেক্ষণ করব।’

মন্তব্য: