স্টিভ রোডসের ছাটাইয়ের পর বাংলাদেশ দলের কোচের পদটা শূন্য হয়ে গেছে। সেই জায়গায় নতুন কাউকে নিয়োগ দিতে এরই মধ্যে কাজ শুরু করে দিয়েছে বিসিবি।

এদিকে শ্রীলঙ্কা সিরিজের আর বাকি রয়েছে ১০-১২ দিন এর মধ্যে যদি কোন কোচ নক পাওয়া যায় তবে আপদকালীন কোচ হিসেবে আবারো দেখা যেতে পারে খালেদ মাহমুদ সুজনকে এমন গুঞ্জন উঠেছে ক্রিকেট পাড়ায়।

তবে বারবার এভাবে ২-১ টা সিরিজের জন্য দলের কোচ হতে চান না তিনি।এজন্যই তিনি কমপক্ষে ২ বছরের জন্য হলেও কোচের দায়িত্ব পালন করতে চাইছেন।

বাংলাদেশ দলের দীর্ঘমেয়া্দী কোচ হওয়ার আশা ব্যক্ত করেছেন সুজন এনটিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন,” কমকরে ২ বছরের জন্য জাতীয় দলের প্রধান কোচের দায়িত্ব নিতে”

এর আগেও তিনি জাতীয় দলকে কোচিং করিয়েছিলেন তবে দীর্ঘমেয়াদী না। যখনই দলের কোচ নিয়োগ দিতে কোন সমস্যা হচ্ছে তখনই তাকে দলের আপদকালীন কোচ করা হয়েছে।

গেলো বছরও দেশের মাটিতে শ্রীলঙ্কা ও জিম্বাবুয়েকে নিয়ে আয়োজন করা ত্রিদেশিয় সিরিজেও কোচের দায়িত্ব তিনিই পালন করেছিলেন। তবে সেই সিরিজে আশানুরূপ ফলাফল এনে দিতে পারছিলেন না তিনি।

ক্রিকেটারদের সাথে সবচেয়ে বেশি কাজ করেছেন দলের ম্যানেজার হিসেবেই। সদ্য সমাপ্ত বিশ্বকাপেও দলের ম্যানেজারের দায়িত্বে ছিলেন তিনি।

তবে অনেকেই প্রশ্ন তুলতে পারেন যে বোর্ড পরিচালক হয়ে আবার জাতীয় দলের কোচের দায়িত্ব পালন করবেন কিভাবে? সেক্ষেত্রে বোর্ড পরিচালক এর পদ ছেড়ে দিতেও রাজি সুজন।

মন্তব্য: