অস্ট্রেলিয়া ম্যাচের পর আপাতত বিশ্রামে রয়েছে পুরো বাংলাদেশ দল। ২ জুলাইয়েরম্যাচে টাইগারদের প্রতিপক্ষ টুর্নামেন্ট ফেভারিট ভারত। সেমিফাইনালের আশা জিইয়ে রাখতে বার্মিংহামে এই ম্যাচে বাংলাদেশের সামনে জয়ের কোনো বিকল্প নেই।

সমর্থকদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকা বাংলাদেশ ও ভারত ম্যাচটির টিকিট এখন সোনার হরিণ। প্রতিবেশি ভারতের বিপক্ষে সুদূর বিলেতে খেলা হলেও থেমে নেই উত্তেজনা। ম্যাচের এক সপ্তাহ আগেই হাহাকার চলছে টিকিটের জন্য। টিকিট পাওয়া গেলেও মূল্য যে আকাশ ছোঁয়া। কালোবাজারে ৪/৫ গুন বেশি দাম হাঁকানো হচ্ছে।

বিশ্বকাপে আইসিসি চার ধরনের টিকিট বিক্রি করছে ব্রোঞ্জ, সিলভার, গোল্ড ও প্লাটিনাম। ব্রোঞ্জ ৪০ পাউন্ড, সিলভার ৬০ পাউন্ড, গোল্ড ৯৫ পাউন্ড, প্লাটিনাম ১২৫ পাউন্ড। পরবর্তীতে চাহিদার কথা মাথায রেখে বাড়িয়ে দেওয়া হয় সব টিকেটের দাম। প্লাটিনাম টিকিটের দাম বেড়ে হয়েছে ২৩০ পাউন্ড। এই সব টিকিট কালোবাজারে চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে। প্লাটিনাম ৩০০ থেকে ৪০০ পাউন্ড, গোল্ড ২০০ থেকে ২৫০ পাউন্ড, সিলভার টিকিট ১৫০ থেকে ২০০ পাউন্ড আর ব্রোঞ্জ ১০০ থেকে ১৫০ পাউন্ড দাম হাঁকানো হচ্ছে। সবচেয়ে বেশি বেড়েছে লর্ডসে বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের ম্যাচে।

চলতি আসরে এখনো দুইটি ম্যাচ খেলা বাকি বাংলাদেশের। যার প্রথমটি ২ জুলাই এবং পরেরটি ৫ জুলাই। আইসিসির ওয়েবসাইটে এখনো বাংলাদেশ পাকিস্তান ম্যাচের টিকিট পাওয়া যাচ্ছে। কিন্তু ভারত-বাংলাদেশের ম্যাচে শুধু প্লাটিনাম কিছু টিকিট ছাড়া আর কোন টিকিট নেই।

মন্তব্য: