প্রথমে ব্যাট করে পাকিস্তানের করা ৩১৫ রানের জবাবে ব্যাট করছে বাংলাদেশ।

বিশ্বকাপে নিজেদের বিদায়ী ম্যাচে আবারও ব্যার্থ হলো সৌম্য ও তামিমের উদ্ধোধনী জুটি। ষষ্ঠ ওভারেই এই জুটিতে প্রতিরোধ গড়লেন মোহাম্মদ আমির। ওভারের চতুর্থ বলে সার্কেলের মধ্যে সৌম্যকে ক্যাচ বানিয়ে প্যাভিলনে ফেরত পাঠালেন তিনি।

দলীয় ২৬ রানের সময় ব্যক্তিগত ২২ রানে বিদায় নেন সৌম্য। সৌম্যর বিদায়ের পর বড় ইনিংস গড়ার দায়িত্ব নিয়ে দ্বিতীয় উইকেটে স্থায়ী হয়নি তামিম ইকবাল ও সাকিব আল হাসানের জুটি। দ্বিতীয় উইকেটে ২২ রান যোগ করার পরই তামিমের উইকেট তুলে নেন শাহিন আফ্রিদী।

২১ বল থেকে মাত্র ৮ রানে বোল্ড আউট হন তামিম। তামিমের বিদায়ের পর দলীয় ৭৮ রানে বাংলাদেশকে তৃতীয় ধাক্কা দেন ওহাব রিয়াজ। ১৬ রানে মুশফিককে বোল্ড আউট করেন তিনি।

এ সময় বাংলাদেশের হয়ে চতুর্থ উইকেটে সাকিবের সঙ্গে জুটি বাঁধেন লিটন দাস। তাদের দুজনের অর্ধশত রানের জুটিতে কিছুটা ঘুরে দাঁড়ায় বাংলাদেশ। তবে এরপরই লিটনকে বিদায় করে বাংলাদেশকে গভীর সংকটে ফেলে দেন আফ্রিদী। ৪০ বল থেকে ৩২ রান করা লিটনকে ক্যাচ বানিয়ে প্যাভিলনে ফেরত পাঠান তিনি। এতে সাকিব ও লিটনের গড়া ৫৮ রানের জুটিতে ছেদ পড়ে।

অন্যদিকে ৬২ বল থেকে অর্শশতক পূরণ করে এক প্রান্ত ধরে রেখেছেন সাকিব। পঞ্চম উইকেটে তাকে সঙ্গ দিতে ক্রিজে নেমেছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ ৩১.২ ওভার শেষে ১৫২/৪। মাহমুদউল্লাহ ৮ ও সাকিব ৬৩।

মন্তব্য: