টাইগার দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা তার শেষ বিশ্বকাপ খেলছেন।
আর এ নিয়ে তার ভক্তদের মধ্যে শুরু হয়ে গেছে নানারকম গুঞ্জন। বিশ্বকাপের পরেই নাকি ক্রিকেটকে বিদায় জানাবেন ‘নড়াইল এক্সপ্রেস’ খ্যাত মাশরাফি। তবে এ ব্যাপারে তিনি এখনো সুস্পষ্টভাবে কিছু বলেননি।

২০১৯ বিশ্বকাপের পর মাশরাফির ‘অবসর’ দেখার পিছনে অবশ্য কিছু কারণ আছে। মাশরাফি তার ক্রিকেটীয় জীবনে বেশ কয়েকবার বড় রকমের ইনজুরির শিকার হয়েছেন। এজন্য তার ক্যারিয়ারটা ছিল নানারকম বাধাবিঘ্নতায় ভরপুর। এরই মধ্যে সর্বশেষ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তার অংশগ্রহণ তার ক্রিকেটের বাইরের ব্যাস্ততাকে আরো বাড়িয়ে দিয়েছে। আর তাই তার শারীরিক ফিটনেস ও সামাজিক ব্যাস্ততার কথা ভেবে অনেকেই মনে করেন মাশরাফির এখনই খেলোয়াড়ি জীবন থেকে অব্যাহতি নেয়া উচিত।

তবে চলতি বিশ্বকাপে অবসর নিয়ে ভাবতে চান না মাশরাফি। আর এ বিষয়ে সংবাদ মাধ্যমে অনেকটা খোলাসা করেই কিছু কথা বলেছেন তিনি। জনপ্রিয় ক্রিকেট বিষয়ক সংবাদমাধ্যম ইএসপিএনক্রিকইনফোর সাথে আলাপকালে জানিয়েছেন, আপাতত অবসর নিয়ে ভাবছেন না তিনি। ক্যারিয়ারের শেষ দেখার জন্য বিশ্বকাপের পরই হয়ত এই নিয়ে ভাবতে চান মাশরাফি।

তিনি বলেন, ‘নির্দ্বিধায় এটা আমার শেষ বিশ্বকাপ। তবে আমি টুর্নামেন্টের পরই অবসর নিব না। এখন এটা নিয়ে ভাবতেও চাই না। বিশেষ করে যখন টুর্নামেন্ট চলছে।

‘মাশরাফি’ বা ‘ম্যাশ’ এখন শুধু একটি নাম না, এটা এখন কোটি বাঙালির গর্ব। এই মানুষটি তার জীবনের সর্বোচ্চটা তার দেশের মানুষের জন্য ঢেলে দিয়েছেন। তার অসাধারণ অধিনায়কত্ব এবারের বিশ্বকাপে বিশ্ববাসীকে দেখিয়ে দিয়েছে যে বাংলাদেশ এখন কোনো তুচ্ছ-তাচ্ছিল্যের দল না। বিশ্বকাপ চলাকালে অবসর নিলে সমর্থকদের মধ্যে নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে- এই বিষয়টিও বিবেচনায় রেখেছেন জাতীয় দলের ওয়ানডে অধিনায়ক।

তার ভাষ্য, ‘এটা বিক্ষোভে রূপ নেয়। এমন সময়ে মানুষ আবেগপ্রবণ হয়ে পড়ে। তবে বোর্ড থেকে কোনো নির্দেশনা থাকলে আমি সেটা নিয়ে ভাবব।’

মন্তব্য: