পর্দা উঠেছে ক্রিকেটের বার তম বিশ্ব আসরের। প্রতিবার বিশ্বকাপ আয়োজনের আগে বিশ্লেষকরা করেন চুলচেরা বিশ্লেষণ, দেন এযাবতকালের নিজেদের সেরা বিশ্বকাপ একাদশ। তবে সেরা এগোরোর পাশাপাশি এবার ব্যর্থ একাদশ নিয়ে বানানো একটা স্কোয়াড ঘোষণা করেছে ক্রিকেটের জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যম ক্রিকইনফো। সেই একাদশে রাখা হয়েছে বাংলাদেশ দলের সাবেক অধিনায়ক ও বর্তমান নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমনকে।

তবে বিশ্ব মঞ্চে একেবারেই হতশ্রী ছিলেন বাশার, সেকারণেই এই একাদশে জায়গা করে নিতে হয়েছে তাঁকে। বাংলাদেশ ক্রিকেটের উত্থানের শুরুটা হাবিবুল বাশারের হাত ধরেই। তার নেতৃত্বেই টাইগার ক্রিকেট পেয়েছে এগিয়ে চলার রসদ। বাংলাদেশ ক্রিকেট ইতিহাসে সেরা অধিনায়কদের কাতারে এখনো উপরের দিকেই রাখা হয় বাশারকে, তার সময়ে ডানহাতি সাবেক এই ব্যাটসম্যানের পরিসংখ্যানটাও নেহাত মন্দ না।

রয়েছেন ইংল্যান্ডের পেসার জেমস অ্যান্ডারসনও। বিশ্বকাপের ব্যর্থ একাদশে অবশ্য বেশিরভাগই এশিয়ান ক্রিকেটার। যেখানে বাশার ছাড়াও রয়েছে পাকিস্তানি সাবেক অধিনায়ক ও তারকা ক্রিকেটার ইনজামাম উল হকের নামও। ইনজামাম ছাড়াও পাকিস্তানের রয়েছে আরও এক ক্রিকেটার, এছাড়াও ভারত দুইজন ও শ্রীলঙ্কার একজন রয়েছে এই ব্যর্থ একদশে।

অ্যালান বোর্ডার অধীনেই প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ জিতেছিল পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। কিন্তু বোর্ডার নিজে ব্যাট হাতে সাফল্য না পাওয়াতেই লজ্জার এই একাদশে ঢুকে পড়েছেন।

বিশ্বকাপের এই ব্যর্থ একাদশে ৬ এশিয়ান ক্রিকেটার ছাড়াও একজন করে আছেন অস্ট্রেলিয়া, ইংলল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, উইন্ডিজ ও কেনিয়ার।

ক্রিকইনফোর ঘোষিত বিশ্বকাপে ব্যর্থ একাদশঃ

নাসির জামশেদ (পাকিস্তান),রমেশ কালুভিতরানা (শ্রীলঙ্কা),হাবিবুল বাশার সুমন (বাংলাদেশ),ইনজামাম উল হক (পাকিস্তান),অ্যালান বোর্ডার (অধিনায়ক, অস্ট্রেলিয়া),কেইথ আর্থুরটন (উইন্ডিজ),মনোজ প্রভাকর (ভারত),জন ব্রেসওয়েল (নিউজিল্যান্ড),টনি সুজি (কেনিয়া),শ্রিনি ভেঙ্কাটরাঘবন (ভারত) ,জেমস অ্যান্ডারসন (ইংল্যান্ড)।

মন্তব্য: