চলতি বিশ্বকাপে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স নিয়ে বিশ্বকাপ আসর শেষ করেছেন মুস্তাফিজ। তবে বিশ্বকাপের আগেই বিয়ের কাজটি সম্পন্ন করে গিয়েছিলেন তিনি। জাতীয় দলের ক্রিকেটার হিসেবে সেরকম কোনো ঢাক-ঢোল বা বাদ্য-বাজনা বাজিয়ে বিয়ে করেননি তিনি। বরং অনেকটা সাদামাটা অনুষ্ঠান করে তার বৌকে বরণ করে নিয়েছিলেন।

গত ২২ মার্চ সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার হাদিপুর গ্রামের বাসিন্দা সুমাইয়া পারভীন শিমুকে বিয়ে করেন মুস্তাফিজুর রহমান। শিমু বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী। শিমুর বাবা রওনাকুল ইসলাম বাবু মুস্তাফিজুর রহমানের মেজো মামা।

মুস্তাফিজের বিয়ে সাদামাটা ধরণের হলেও পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল, বিশ্বকাপ শেষ হওয়ার পর বড় অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। যেখানে থাকবেন বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটার সহ উভয় পরিবারের আত্মীয়-স্বজন।

এদিকে ভারতের সাথে হেরে সেমিফাইনালের পয়েন্ট টেবিল থেকে ছিটকে পরে বাংলাদেশ। আর তাই আজ (শনিবার) রাতে দেশে ফিরছে মুস্তাফিজসহ আরো ক্রিকেটাররা। এরই মধ্যে মুস্তাফিজুর রহমানের সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার তেঁতুলিয়া ইউনিয়নের গ্রামের বাড়িতে চলছে বৌভাত আয়োজনের প্রস্তুতি।

আগামী ১৩ জুলাই শনিবার অনুষ্ঠিত হবে মুস্তাফিজের বৌভাত। আত্মীয় স্বজনসহ শুভাকাঙ্খীদের আমন্ত্রণ জানানো ও বাড়িতে সাজসজ্জার কাজও চলছে জোরেসোরে।

এ ব্যাপারে মুস্তাফিজের সেজো ভাই মোকলেসুর রহমান পল্টু জানান, ‘পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়েছে মুস্তাফিজের। আগামী ১৩ জুলাই বৌভাত অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। সে অনুযায়ী আয়োজনের প্রস্তুতিও চলছে। চলছে সাজসজ্জার কাজও।’

মুস্তাফিজের ঘনিষ্ঠ বন্ধু হাফিজুর রহমান হাফিজ জানান, মুস্তাফিজ ৭ জুলাই দেশে ফিরার পর ১০ জুলাই সাতক্ষীরার গ্রামের বাড়িতে ফিরবেন।’

মন্তব্য: