14.7 C
New York
Thursday, October 6, 2022

Buy now

ভারত আর আইপিএল ছাড়া ক্রিকেট বিশ্বের গতি নেই!

সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়া সফর বাতিল করে বিশ্বকাপে সরাসরি খেলার সুযোগকেও ঝুঁকির মধ্যে নিয়ে গেছেন দক্ষিণ আফ্রিকা। তাদের কাছে সবচেয়ে বেশি অগ্রাধিকার পাচ্ছে আইপিএল।

তবে এ সিদ্ধান্ত কোনো খামখেয়ালি নয়। বরং ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগের মাধ্যমে দেশের ক্রিকেট অর্থনীতি বাঁচাতেই দক্ষিণ আফ্রিকা বোর্ড সিদ্ধান্ত নিয়েছে অস্ট্রেলিয়া সফরে না গেলেও চলবে।

আরও পড়ুন: রোনালদোর প্রস্তাবে সাড়া দেয়নি পিএসজি

এরমধ্যে দিয়ে একটি বিষয় স্পষ্ট করে দিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ড। সেটি হল, বিরাট কোহলী-রোহিত শর্মাদের বিরুদ্ধে না খেললে আর্থিক দিক দিয়ে লাভবান হওয়ার কোনও সম্ভাবনাই নেই।

আগামী জানুয়ারিতে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে এক দিনের সিরিজ খেলার কথা ছিল দক্ষিণ আফ্রিকার। কিন্তু বোর্ড কর্তারাই ক্রিকেটারদের সঙ্গে কথা বলে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সিরিজ না খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

ক্রিকেট অর্থনীতির স্বাস্থ্য ফেরাতে আইপিএলের আদলে টি-টোয়েন্টি প্রতিযোগিতা শুরু করছে ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা। আগামী জানুয়ারিতে হবে প্রথম বারের প্রতিযোগিতা।

আরও পড়ুন: আবারও ক্রিকেটে ফিরছেন মর্গ্যান

দক্ষিণ আফ্রিকার বোর্ডের এক কর্তা লসন নাইডু বলেছেন, ‘টি-টোয়েন্টি লিগকেই আমরা এই মুহূর্তে সবথেকে গুরুত্ব দিচ্ছি। আইপিএলের পরে এটা বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম লিগ হতে চলেছে। ২০২৩ সালের জানুয়ারিতে প্রতিযোগিতা আয়োজনের সব কিছুই চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছে। যারা ফ্র্যাঞ্চাইজি নিয়েছেন তারা দেশের সেরা ক্রিকেটারদের দলে পেতে চাইবেন, এটাই স্বাভাবিক।’

দক্ষিণ আফ্রিকার বোর্ডের সিইও ফোলেতসি মোসেকি বলেছেন, ‘অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে এক দিনের সিরিজ বাতিল হওয়ায় ক্রিকেটাররা খুবই হতাশ। ওরা অবশ্য সিরিজ বাতিল হওয়ার কারণ বুঝতে পেরেছে। নতুন টি-টোয়েন্টি প্রতিযোগিতায় বহু মানুষ প্রচুর অর্থ বিনিয়োগ করেছেন। এই প্রতিযোগিতা যাতে সফল হয়, তার জন্য আমাদের সব রকম ব্যবস্থা করতেই হবে।’

আরও পড়ুন: ক্রিকেটকে বাঁচিয়ে রাখতে সৌরভ, জয় শাহদের পাশে চায় ইউক্রেন

‘ক্রিকেটারদের সঙ্গে আমরা ৪৫ মিনিট বৈঠক করেছি। সেখানে টেস্ট অধিনায়ক ডিন এলগারও ছিল। ওরা সিরিজ না হওয়ায় অখুশি হলেও দেশের ক্রিকেটের স্বার্থে এই সিদ্ধান্ত মেনে নিয়েছে।’

প্রসঙ্গত, দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১৭ সালে টি-টোয়েন্টি প্রতিযোগিতা শুরু করলেও সফল হয়নি। সম্প্রচার, স্পনসর ঠিক মতো না পাওয়ায় ২০১৯ সালেই সেই প্রতিযোগিতা বন্ধ করে দিতে হয়। তাই এ বার সব দিক বিবেচনা করে এবং সব রকম প্রস্তুতি নিয়ে প্রতিযোগিতা আয়োজন করছে তারা।

বিডি স্পোর্টস নিউজ/জেএ

Related Articles

Leave a reply

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

0FansLike
3,514FollowersFollow
0SubscribersSubscribe
- Advertisement -spot_img

Latest Articles