মেয়ের দাফন সম্পন্ন করে শনিবার ইংল্যান্ডে পাকিস্তান ক্রিকেট দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন শোকার্ত আসিফ আলী। এমন তথ্য জানিয়েছে পাকিস্তানি সংবাদ সংস্থা দ্য ডন।

১৯ মাস বয়সী শিশুকন্যা নূর ফাহিমা বেশ কিছুদিন ধরে ক্যানসারের সঙ্গে লড়ছিল। চতুর্থ ধাপের ক্যানসার, তাই মৃত্যুটা অবধারিতই ছিল। যুক্তরাষ্ট্রে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত রবিবার মারা যায় আসিফের কন্যা। যে কারণে ইংল্যান্ড থেকে দেশে ফিরে যান আসিফ।

বৃহস্পতিবার পাঞ্জাবের ফয়সালাবাদে ফাতেমাকে দাফন করা হয়। সেই শোক সঙ্গী করে বিশ্বকাপ খেলতে গেলেন আসিফ।কন্যার মৃত্যুশোক কোনো বাবার পক্ষে ভুলে যাওয়া ভীষণ কঠিন। আসিফ এ আঘাত কাটিয়ে উঠতে না পারলেও কন্যাকে হারানোর শোককে দেখছেন শক্তি হিসেবে। যেমনটি আসিফ লিখেছেন টুইটারে।

সামাজিক যোগযোগ মাধ্যম টুইটারে এক বার্তায় আসিফ জানান, ‘নুর ফাতিমাকে আমি যোদ্ধা হিসেবে স্মরণ করতে চাই। সে ছিল আমার শক্তি ও অনুপ্রেরণা। তার সুবাস সব সময় আমি বয়ে বেড়াব। সে আজীবন আমার হৃদয়ে বসবাস করবে। আমি আবারো সবার কাছে আমার এই রাজকন্যার জন্য দোয়া কামনা করছি।’

দলকে সমর্থন দেয়ার জন্য পাকিস্তানী সমর্থকদের প্রতি আহ্বানও জানিয়েছেন আসিফ। সমর্থকদের উদ্দেশ্য করে আসিফ বলেন, ‘আপনাদের দোয়া এবং নি:শর্ত সমর্থন কামনা করছি।’

বিশ্বকাপের জন্য ঘোষিত পাকিস্তানের প্রাথমিক স্কোয়াডে ছিলেন না মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান আসিফ। কিন্তু ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৪-০ ব্যবধানে পরাজিত হওয়া ওয়ানডে সিরিজে দুটি হাফ সেঞ্চুরি করায় তাকে স্কোয়াডভুক্ত করা হয়।

মন্তব্য: