ট্রাই-নেশন সিরিজের পর জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের অল্প কিছুদিনের অবসর। এর পর শুরু হবে জাতীয় ক্রিকেট লিগ। তবে তার আগের অবকাশ যাপনটা বেশ ভালোভাবেই কাটাচ্ছেন ক্রিকেটাররা। জাতীয় দলের পেসার, কাটারমাস্টার খ্যাত মোস্তাফিজুর রহমান অবসর কাটাচ্ছেন সাতক্ষীরায় নিজের গ্রামের বাড়িতে।

এরই মধ্যে দেশের স্বনামধন্য পত্রিকা জাগো নিউজের সাতক্ষীরা প্রতিনিধি আকরামুল ইসলামের দাওয়াতে সাড়া দেন মোস্তাফিজ। দাওয়াতের বিশেষত্ব ছিল, বড়শি দিয়ে পুকুরে মাছধরা।

এরপরে বেলা ১২ টার দিকে মুস্তাফিজ মাছ মারতে পুকুর ঘাটে অবস্থান করেন। তবে মোস্তাফিজের মেজ ভাই পল্টু অবশ্য আগেই চলে এসেছিলেন। সকাল ৮টায় এসে পৌঁছান তিনি। মাছ ধরার চিপি, খাবার- এসব ঠিকঠাক করতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন পল্টু।

দুপুর ১২টার দিকে বন্ধু-বান্ধবসহ উপস্থিত হওয়ার পরই নির্ধারিত জায়গায় গিয়ে পুকুরে বড়শি ফেলেন মোস্তাফিজ। হতাশ হতে হয়নি তাকে। একে একে মোস্তাফিজের বড়শিতে ধরা পড়ে প্রায় ১২ কেজি ওজনের একটি পাঙ্গাশ মাছ। আরও ৭টা পাঙ্গাশ মাছ ধরা পড়েছে, যার প্রতিটি ৮ থেকে ৯ কেজি ওজনের। এছাড়া একটি রুই মাছও ধরা পড়েছে। যেটার ওজন হবে প্রায় ৫ কেজি।

বড়শি দিয়ে মাছ ধরতে আসছেন মোস্তাফিজ। এ খবর ছড়িয়ে পড়ার পর মুহূর্তেই সেখানে শত শত মানুষ হুমড়ি খেয়ে পড়ে। এক সময় উৎসুক জনতার সংখ্যা হাজার ছাড়িয়ে যায়। শেষ পর্যন্ত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে তালা থানার পুলিশকে পর্যন্ত হস্তক্ষেপ করতে হয়।

মন্তব্য: