২ জুলাই ভারতের বিপক্ষে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। দুই দলের প্লেয়ারদের সাক্ষাৎ হওয়ার কথা ছিলো বার্মিংহাম মাঠেই। কিন্তু দুই দলই এক হোটেলে উঠার সুবাদে আগেই দেখা হয়ে গেলো মি.কুল খ্যাত ধোনি ও ক্যাপ্টেন ম্যাশ এর। পাঁচ তারকা হোটেল হায়াত রিজেন্সিতে উঠেছে দুই দলই।

আফগানিস্তানের সাথে ম্যাচ জয়ের পর ছুটি কাটিয়ে আগেই হায়াত রিজেন্সিতে উঠে বাংলাদেশ দল। আর উইন্ডিজের সাথে ম্যাচ জয়ের পর শুক্রবার দুপুরে একই হোটেলে উঠে টিম ইন্ডিয়া।

টাইগারদের সাথে ইন্ডিয়ার ক্রিকেটারদের সাথে সখ্যতা নতুন না। প্রতিবেশী দেশ হিসেবে এই দুই দলের অনেক আগে থেকেই রয়েছে একটা মিষ্টি সম্পর্ক। তাছাড়া মাশরাফির সাথে যুবরাজ সিং আর ইরফান পাঠানের বন্ধুত্বও অনেক দিনের। এদিকে আলরাউন্ডার সাকিব আইপিএলে নিয়মিত খেলার কারণে ভারতীয় ক্রিকেটারদের সাথে একটা আত্মিক সম্পর্ক তৈরী হয়েছে। আশরাফুলে সাথে টেন্ডুলকারের সম্পর্ক ও ছিলো বেশ। টেন্ডুলকার তো ডিনারও করেছিলেন আশরাফুলের বাসায়।

শুক্রবার দুপুরে একই হোটেলে অবস্থানের কারণেই দেখা হয়ে যায় দুই সুপারস্টার মাশরাফি বিন মর্তুজা আর মহেন্দ্র সিং ধোনির। বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফির মত ভারতের থিঙ্ক ট্যাঙ্ক ও সাবেক ক্যাপ্টেন ধোনিরও এটা শেষ বিশ্বকাপ।

দুজনার সম্পর্কও অনেক দিনের। সেই ২০০৪ সালে ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে ভারত গিয়েছিল বাংলাদেশে। সেই সিরিজেই অভিষেক ঘটে ধোনির। ২০০৪ সালের ২৩ মার্চ চট্টগ্রামের এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে এই বাংলাদেশের বিপক্ষে অভিষেক ঘটেছিল ভারতীয় ক্রিকেটের জীবন্ত কিংবদন্তির।

গতকাল দুই অভিজ্ঞ যোদ্ধা হোটেলে দেখা হওয়া মাত্র একজন আরেকজনকে ভালবাসার উষ্ণ আলিঙ্গনে আবদ্ধ করলেন। কুশলাদি জানতে চাইলেন একজন আরেকজনের। ভারতের সাবেক ক্যাপ্টেন ধোনি আর বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফির টিম হোটেলে সাক্ষাতের সে মুহূর্তটি ক্যামেরাবন্দী করেছেন বিসিবির ফটো জার্নালিস্ট রতন গোমেজ।

মন্তব্য: