ব্যাটিং ফর্ম আর ভাগ্য দুই সহায়ে রোহিত শর্মার এ বিশ্বকাপ যেন রূপকথার গল্পের মত। চলতি বিশ্বকাপে তার ব্যাট হয়েছে রান ম্যাশিন। আর সেই রান ম্যাশিনের বদৌলতে একে একে পাঁচটি সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন তিনি।

বিশ্বকাপে সেঞ্চুরি করা যে সহজ নয়, তা আগের পরিসংখ্যান ঘাটলেই বুঝা যায়। সব বিশ্বকাপ মিলে অন্তত ৫ টি সেঞ্চুরি আছে, এই টুর্নামেন্ট শুরুর আগে এমন ব্যাটসম্যান ছিলেন মাত্র তিনজন। অথচ রোহিত শর্মা এই দ্বাদশ বিশ্বকাপেই করে ফেললেন ৫ টি সেঞ্চুরি। বিশ্বকাপের এক আসরে সর্বোচ্চ সেঞ্চুরির মালিক এখন রোহিত। ২০১৫ বিশ্বকাপে চারটি সেঞ্চুরি ছিলো লঙ্কান কিংবদন্তি কুমার সাঙ্গাকারার। আর সেই রেকর্ড ভেঙে এক আসরে সবচেয়ে বেশি সেঞ্চুরির মালিক হলেন রোহিত শর্মা।

বিশ্বকাপ শুরু করেছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সেঞ্চুরি করে। অপরাজিত ১২২ রানের ইনিংস খেলে জেতালেন দলকে। মাঝে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে থেমেছিলেন ফিফটি করেই, এরপর একে একে করে ফেললেন আরও চারটি সেঞ্চুরি। এর মধ্যে শেষ তিনটি আবার টানা তিন ম্যাচে সেঞ্চুরির হ্যাটট্রিক!

দ্বিতীয় সেঞ্চুরিটি চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানের বিপক্ষে। ১৪০ রানের ইনিংস খেলে সেদিনও জেতালেন দলকে। মাঝে দুই ম্যাচ ভালো করতে পারেন নি উইন্ডিজ আর আফগানিস্তানের বিপক্ষে। আফগানিস্তানের বিপক্ষে মুজিবের ঘূর্ণিতে কাবু হয়ে ১ রানেই সাজ ঘরে ফিরেছিলেন।

এরপর আবার নামলেন সেঞ্চুরি করার মিশনে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে করলেন ১০২, এক দিন পরেই বাংলাদেশের বিপক্ষে ১০৪। এবার শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেও করলেন ১০৩ রান। ইংল্যান্ড-বাংলাদেশ দুই ম্যাচেই ইনিংসের শুরুতে রোহিতকে জীবন দিয়েছিলেন ফিল্ডাররা। রোহিত সেটির ‘প্রতিদান’ দিয়েছেন সেঞ্চুরি করেই।

এক রেকর্ডে সাঙ্গাকারাকে টপকে গিয়েছেন, আরেক রেকর্ডে সাঙ্গাকারাকে ছোঁয়ার সুযোগ রোহিত পাবেন সেমিফাইনালে। সেদিনও যদি সেঞ্চুরি করতে পারেন, সাঙ্গাকারার পর মাত্র দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে টানা চার ওয়ানডেতে সেঞ্চুরি করার বিরল মালিক হবেন রোহিত।

টেন্ডুলকারের একটি রেকর্ড ছুঁয়েছেন রোহিত। বিশ্বকাপ ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি সেঞ্চুরি এখন এ দুজনের। ৬টি বিশ্বকাপ খেলে ৪৪ ইনিংসে ৬টি সেঞ্চুরি টেন্ডুলকারের। আর দ্বিতীয় বিশ্বকাপ খেলতে এসে মাত্র ১৬ ইনিংসেই টেন্ডুলকারের পাশে ভাগ বসালেন রোহিত শর্মা।

মন্তব্য: