ব্যাট হাতে বাংলাদেশের সেরা জুটির একটি সাকিব-মুশফিক জুটি। বাংলাদেশের অনেকগুলি জয়ে অবদান রাখা এই জুটির রান সংখ্যা এখন তিন হাজারেরও বেশি।

আজ (সোমবার) বিশ্বকাপের ৩১ তম ও নিজেদের সপ্তম ম্যাচে সাউদাম্পটনের রোজ বেলে আফগানিস্তানের বিপক্ষে খেলছে বাংলাদেশ। যেখানে টসে হেরে প্রথমে ব্যাটিং করতে নেমে লিটনের উইকেট হারিয়ে শুরুতেই বিপদে পড়ে টাইগাররা। দলীয় ২৩ রানে লিটনের উইকেট হারানোর পর তামিম ইকবাল আর সাকিব আল হাসানের ৬১ বলে ৫১ রানের জুটি সমর্থকদের আশার আলো দেখায়।

১৫তম ওভারের শেষ বলে দলীয় ৭৪ রানে লিটনের উইকেট নেয়া মুজিবের বলে নিজের উইকেট খুইয়ে বসেন তামিম ইকবাল। এরপরে সাকিবকে সঙ্গ দিতে ব্যাটিংয়ে নামেন উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম। এই জুটিতে ৪৪ রানের সময়ই ওডিআই ক্রিকেটে সাকিব-মুশফিক জুটির তিন হাজার রান পূর্ণ হয়।

আজ পঞ্চপান্ডবের এই দুই জনের জন্যই চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়তে সক্ষম হয়েছে বাংলাদেশ দল। সাকিব ৬৯ বল খেলে এক বাউন্ডারিতে ৫১ রান করেন আর মুশফিক ৮৭ বল খেলে চার বাউন্ডারি ও এক ছক্কায় ৮৩ রানের অসাধারণ এক ইনিংস খেলেন।

তবে, এই জুটির ৬১ রানের সময় আবারো বাংলাদেশের ওপেনার ব্যাটসম্যানদের আউট করা মুজিব উর রহমানের বলে ব্যক্তিগত ৫১ রানে ফিরে যান সাকিব আল হাসান। আর তাতেই সমাপ্তি ঘটে সাকি-মুশি জুটির।

২০০৭ সাল থেকে শুরু হওয়া সাকিব মুশফিকের ৮২ ইনিংসে ৩০১৭ রানের এই পার্টনারশিপ সর্বকালের সেরা পার্টনারশিপ গুলোর মধ্যে ৩৫ তম অবস্থানে রয়েছে। আর এক নম্বরে ধরা ছোয়ার বাইরে রয়েছে ১৯৯২ থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত একসাথে খেলা কিংবদন্তি সৌরভ গাঙ্গুলি ও শচীন টেন্ডুলকারের ১৭৬ ইনিংসে ৮২২৭ রানের পার্টনারশিপ।

মন্তব্য: