২০১৯ বিপিএলের প্লেয়ার্স ড্রাফটে অংশগ্রহণ করেছে ৭টি দল। গতকাল রাজধানীর নামী এক পাঁচতারকা হোটেলে দল গঠনের নিলামে অংশ নেয় তারা। এবারের নিলামে দলগুলো নাম-ডাক আর অভিজ্ঞতার চেয়ে যে ক্রিকেটাররা খেলার ভেতরেআছে আর ইনফর্ম পারফরম্যান্স ভালো তাদেরকেই বেশি গুরুত্ব দিয়েছে।

আর সে কারণেই বিশ্বকাপের পর সব রকমের ক্রিকেট থেকে দূরে থাকা বাংলাদেশ ক্রিকেটের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার প্রতিও আগ্রহ কম ছিল দলগুলোর। নিলাম শুরু হওয়ার প্রথম ধাপে দল পাননি মাশরাফি। পেয়েছেন অনেক দেরিতে।

তবে, মাশরাফির সময়ের অনেক ক্রিকেটারই দল পাননি শেষ পর্যন্ত। বিপিএলের দলগুলোর সিনিয়র ক্রিকেটারদের প্রতি তেমন উৎসাহ ছিলোনা। আর তাই মাশরাফি ছাড়া সে অর্থে বেশ কয়েকজন সিনিয়র ক্রিকেটারই দল পাননি।

আসল কথা হলো সিনিয়রদের বেশিরভাগ ক্রিকেটারই দল পাননি। জাতীয় দলের বাইরে থাকা সিনিয়রদের প্রায় সবাই ছিলেন ‘সি’ ক্যাটাগরিতে। তার বড় অংশই কোন দলে ডাক পাননি। তার মধ্যে আছে মোহাম্মদ আশরাফুল, শাহরিয়ার নাফীস, আব্দুর রাজ্জাক, তুষার ইমরান, নাইম ইসলাম, মার্শাল আইয়ুব আর জিয়াউর রহমানের মতো নাম।

এছাড়া ক্যান্সার থেকে সুস্থ্ হয়ে ওঠা জাতীয় দলের সাবেক বাঁহাতি স্পিনার মোশাররফ রুবেল (‘সি’ ক্যাটাগরি), বাঁহাতি স্পিনার কাম ব্যাটসম্যান ইলিয়াস সানি (‘ডি’ ক্যাটাগরি), পেসার শাহাদত হোসের রাজিবও (‘ডি’ ক্যাটাগরি) দল পাননি।

দল পাননি দুই আসর আগে ব্যাট হাতে ঝড় তোলা ওপেনার মেহেদি মারুফ, বাঁহাতি স্পিনার সাকলাইন সজিব, পেসার শুভাশীষ রায়, লেগস্পিনার তানভীর হায়দার, টপ অর্ডার সৈকত আলী এবং জাতীয় দলের দুই পেসার খালেদ আহমেদ আর ইবাদত হোসেন।

তবে ওপরের ক্রিকেটারদের সকলেই যে এবারের আসরে থাকবেননা তা আগে ভাগে বলা কঠিন। কারণ দলগুলো এখনো আপোষ মীমাংসায় ক্রিকেটারদের স্কোয়াডে সংযুক্ত করতে পারে। গত বছর মোহাম্মদ আশরাফুল ও শাহরিয়ার নাফীস এভাবেই আপোষে দল পেয়েছিলেন।

দেখে নিন বিপিএলের সব দলের পূর্ণাঙ্গ খেলোয়াড় তালিকা

ঢাকা প্লাটুন: তামিম ইকবাল, এনামুল হক বিজয়, হাসান মাহমুদ, মেহেদী হাসান, থিসারা পেরেরা (বি), লরি ইভান্স (বি), আরিফুল ইসলাম, মুমিনুল হক, শুভাগত হোম, মাশরাফি বিন মুর্তজা, ওয়াহাব রিয়াজ (বি), আসিফ আলী (বি), রকিবুল হাসান, জাকির আলী, লুইস রিস (বি), শহীদ আফ্রিদি (বি)।

চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স: মাহমুদউল্লাহ, ইমরুল কায়েস, নাসির হোসেন, রুবেল হোসেন, ক্রিস গেইল (বি), কেসরিক উইলিয়ামস (বি), নুরুল হাসান, এনামুল হক জুনিয়র, মুক্তার আলী, পিনাক ঘোষ, আভিষ্কা ফার্নান্দো (বি), রায়াদ এমরিত (বি), নাসুম আহমেদ, জুনায়েদ সিদ্দিকী, রায়ান ব্রার্ল (বি), ইমাদ ওয়াসিম (বি)।

রাজশাহী রয়্যালস: লিটন দাস, আফিফ হোসেন, আবু জায়েদ রাহি, ফরহাদ রেজা, রবি বোপারা (বি), হজরুতুল্লাহ জাজাই (বি), তাইজুল ইসলাম, অলক কাপালি, কামরুল ইসলাম রাব্বি, ইরফান শুক্কুর, মোহাম্মদ নওয়াজ (বি), মোহাম্মদ ইরফান (বি), মিনহাজুল আবেদীন আফ্রিদি, নাহিদুল ইসলাম।

সিলেট থান্ডার: মোসাদ্দেক হোসেন, নাজমুল ইসলাম অপু, মোহাম্মদ মিঠুন, সোহাগ গাজী, শেরফেন রাদারফোর্ড (বি), শফিকউল্লাহ শাফাক (বি), রনি তালুকদার, নাঈম হাসান, মনির হোসেন খান, দেলোয়ার হোসেন, নাভিন-উল-হক (বি), জনসন চার্লস (বি), রুবেল মিয়া, জীবন মেন্ডিস (বি)।

খুলনা টাইগার্স: মুশফিকুর রহিম, শফিউল ইসলাম, নাজমুল হোসেন শান্ত, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব, রাইলি রুশো (বি), রবি ফ্রাইলিংক (বি), শামসুর রহমান, মোহাম্মদ সাইফ হাসান, মেহেদী হাসান মিরাজ, শহিদুল ইসলাম, মোহাম্মদ আমির (বি), নাজিবুল্লাহ জাদরান (বি), আলিস আল ইসলাম, তানভীর ইসলাম, রহমতউল্লাহ গুরবাজ (বি)।

রংপুর রেঞ্জার্স: মোস্তাফিজুর রহমান, আরাফত সানী, জহুরুল ইসলাম, মোহাম্মদ নাঈম শেখ, মোহাম্মদ নবী (বি), শাই হোপ (বি), তাসকিন আহমেদ, জাকির হাসান, নাদিফ চৌধুরী, ফজলে মাহমুদ, লুইস গ্রেগরি (বি), ক্যামেরন ডেলপোর্ট (বি), সনজিত সাহা।

কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স: আল আমিন হোসেন, সৌম্য সরকার, ইয়াসির আলী, সাব্বির রহমান, কুশল পেরেরা (বি), মুজীব-উর-রহমান (বি), সানজামুল ইসলাম, আবু হায়দার, মাহিদুল অংকন, সুমন খান, ডেভিড মালান (বি), দাসুন শানাকা (বি), ফারদিন হোসেন।

মন্তব্য: