ক্রিকেট মাঠকে বিদায় জানালেন বিখ্যাত আম্পায়ার ইয়ান গোল্ড। ৬১ বছর বয়সী এই আম্পায়ার গত শনিবার (৬ জুলাই) চলতি বিশ্বকাপের ৪৫ তম আসরে তার আম্পায়ারিং ক্যারিয়ারের ইতি টানেন। ইয়ান গোল্ড তার বর্ণাঢ্য জীবনে একদিকে যেমন কুড়িয়েছেন প্রশংসার ফুলঝুড়ি, তেমনি আম্পায়ারিং করার সময় তার কিছু উগ্র সিদ্ধান্ত সমালোচনার শিকার হয়েছে বহুবার।

আম্পায়ারিং ক্যারিয়ারের ইতি টানার আগে ইয়ান গোল্ড পরিচালনা করেছেন ৩৭টি টি-টোয়েন্টি, ১৪০টি ওয়ানডে এবং ৭৪টি টেস্ট ম্যাচ। ইংল্যান্ডের এই কিংবদন্তী আম্পায়ার জন্মসূত্রে ইংল্যান্ডের নাগরিক।

আম্পায়ারিং জীবন শুরু করার আগে গানার হিসেবে খ্যাত এই আম্পায়ার প্রথম দিকে ইংল্যান্ডের জাতীয় দলের জার্সি গায়ে জড়িয়েছিলেন। ১৯৮৩ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে একদিনের ক্রিকেটে অভিষেক হয় তার। ঐ বছরের জুনেই খেলেন নিজের শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ। মাত্র এক বছরের জন্য জাতীয় দলে খেলা এই ক্রিকেটার কখনো টেস্ট না খেলে আইসিসির এলিট প্যানেলের অংশ হিসেবে সুনাম কুড়িয়েছিলেন। অবশ্য ইংলিশ ক্রিকেটে খেলেছিলেন ২৯৮টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ।

বিখ্যাত এই আম্পায়ার ক্রিকেট আসার আগে নাকি ফুটবলের সাথেও যোগসূত্র ছিল! বিখ্যাত ইংলিশ ক্লাব আর্সেনালের সাথে সম্পর্কের কারণেই তার ডাক নাম হয়ে যায় গানার। যদিও শেষপর্যন্ত ক্রিকেটেই খুঁজে নিয়েছেন আশ্রয়।

ইয়ান গোল্ড ১৯৫৭ সালের ১৯ আগস্ট জন্মগ্রহণ করেন। আম্পায়ার হিসেবে তার খ্যাতি থাকলেও মাঝে মাঝে ছুঁয়েছেন বিতর্কও। ২০১৫ বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে বাংলাদেশের বিপক্ষে একাধিক ভুল সিদ্ধান্ত দেওয়ার পেছনে তাকে দোষারোপ করে থাকেন অনেকে। সেই থেকে এই দেশের ক্রিকেট সমর্থকদের একাংশের কাছে তিনি ছিলেন অপছন্দের পাত্র হয়ে।

মন্তব্য: