আফগানিস্তানের বিপক্ষে ৬২ রানের জয় পেয়েছে বাংলাদশ দল। এই ম্যাচে ব্যাটহাতে ফিফটির পাশাপাশি বল হাতে পাঁচটি উইকেট নিয়েছেন সাকিব আল হাসান। সাকিবের এই অলরাউন্ড পারফরম্যান্সের সুবাদে এক ম্যাচেই একাধিক রেকর্ডে নিজের নাম লিখিয়েছেন।

চলুন এক নজরে দেখে নিই আফগানিস্তান ম্যাচে সাকিবের রেকর্ড গুলো

২.
ব্যাট হাতে সাকিব খেলেছেন ৫১ রানের ইনিংস। এরপর বল হাতে শিকার করেন ৫ উইকেট। বিশ্বকাপে এক ম্যাচে ফিফটি ও ৫ উইকেটের কীর্তি এর আগে ছিল শুধু যুবরাজ সিংয়ের। ২০১১ বিশ্বকাপে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে এই কৃতিত্ব দেখিয়েছিলেন যুবরাজ।

৩.
বিশ্বকাপের এক আসরে সেঞ্চুরি ও ৫ উইকেট নেওয়ার কৃতিত্ব এত দিন ছিল শুধু কপিল দেব ও যুবরাজ সিংয়ের। সাকিব তৃতীয় ক্রিকেটার হিসেবে এই এলিট ক্লাবে প্রবেশ করলেন।
১৯৮৩ সালে বিশ্বকাপের আসরে সেঞ্চুরির সঙ্গে ৫ উইকেটের কীর্তি গড়েন কপিল দেব। ২০১১ সালে দ্বিতীয় ক্রিকেটার হিসেবে এই কীর্তি গড়েন যুবরাজ। এবার গড়লেন সাকিব।

১.
এবারের আসরে এখন পর্যন্ত ৬ ম্যাচে সাকিবের রান ৪৭৬। দুটি সেঞ্চুরি ও তিনটি ফিফটি। এর সঙ্গে উইকেট ১০টি। বিশ্বকাপের ইতিহাসে এরআগে ৪০০ রান ও ১০ উইকেটের ডাবল ছিল না কারো। সাকিবই এই কীর্তিতে প্রথম।
১৯৯৯ বিশ্বকাপে ল্যান্স ক্লুজনার ২৮১ রান ও ১৭ উইকেট নিয়ে হয়েছিলেন সেরা অলরাউন্ডার। আর ২০১১ সালে যুবরাজ সিং ৩৬২ ও ১৫ উইকেট নিয়ে সেরা অলরাউন্ডার নির্বাচিত হন।

৫.
প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে বিশ্বকাপে পাঁচ উইকেট নিলেন সাকিব। এর আগে বিশ্বকাপে বাংলাদেশের পক্ষে সেরা বোলিংয়ের কীর্তি ছিল শফিউল ইসলামের। ২০১১ সালে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ৪ ম্যাচে ২১ উইকেট নিয়েছিলেন তিনি।

১.
বিশ্বকাপের ইতিহাসে সাকিবই প্রথম খেলোয়াড় যিনি ১ হাজার রান ও ৩০ উইকেট শিকারের অনন্য ডাবল গড়েছেন। এখন পর্যন্ত ২৭ ম্যাচে ৩৩ উইকেট ও ১০১৬ রান তার।

মন্তব্য: