বিশ্বকাপের ফাইনালে ঐতিহাসিক লর্ডসে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথমে ব্যাট করে ৮ উইকেটে ২৪১ রান তুলল নিউজিল্যান্ড। তাদের হয়ে একমাত্র হাফ সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন হেনরি নিকোলস। এছাড়া শেষদিকে ল্যাথামের ৪৭ রান ভর করে লড়াই করার শক্তি পায় তারা।

টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে সপ্তম ওভারে গাপটিলের উইকেট হারায় নিউজিল্যান্ড। ক্রিস ওকসের বলে এল বি ডব্লিউ হন গাপটিল। ১৮ বল থেকে ২টি চার ও ১টি ছক্কায় ১৯ রান করেন তিনি।

দ্বিতীয় উইকেটে নিকোলস ও উইলিয়ামসন ইনিংস সর্বোচ্চ ৭৪ রানের জুটি গড়েন। দলীয় স্কোর যখই ১০৩ তখই এই জুটির উইলিয়ামসনকে ব্যক্তিগত ৩০ রানে প্যাভিলনে ফেরত পাঠান প্লানকেট। ১৫ রানের ব্যাবধানে প্লানকেট অন্য সেট ব্যাটসম্যান নিকোলসকে ব্যক্তিগত ৫৫ রানে বোল্ড আউট করেন।

এরপর নিউজিল্যান্ড ইনিংসে সেভাবে আর কোনো বড় জুটি গড়তে পারেনি। প্রত্যেকেই ক্রিজে সেট হয়েও ইনিংস বড় করতে পারেননি। টেলর ১৫ রানে উড এবং নিশাম ১৯ রানে প্লানকেটের বলে পরাস্থ হন।

তবে এ সময় পঞ্চম উইকেটে ব্যাট করেতে নেমে ব্যাট হাতে কিছুটা প্রতিরোধ গড়ে তোলেন টম ল্যাথাম। ৪৯তম ওভারে তৃতীয় বলে ৫৬ বল থেকে ৪৭ রান করে ওকসের বলে আউট হন তিনি।

কিউই ব্যাটসম্যানদের কখনোই হাত খুলে মারার সুযোগ পাননি। শেষ ৮ ওভারে ৫৫ রান তোলে তারা। ফলে নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৮ উইকেটে ২৪১ রানের সংগ্রহ পায় তারা।

ইংল্যান্ডের হয়ে এদিন প্লাঙ্কেট ৪২ ও ওকস ৩৭ রান দিয়ে ৩টি করে উইকেট নেন। এছাড়া আর্চার ও উড নেন ১টি করে উইকেট।

মন্তব্য: