শুক্রবার বাংলাদেশের বিপক্ষে ৯৪ রানের বিশাল জয় দিয়ে বিশ্বকাপ মিশন শেষ করেছে পাকিস্তান। কিন্তু ম্যাচ শেষেই আন্তর্জাতিক ওয়ানডেকে বিদায় বলে দিলেন পাকিস্তানের অভিজ্ঞ ক্রিকেটার শোয়েব মালিক। এর আগে ২০১৬ সালে টেস্ট ক্রিকেটকে বিদায় জানানো শোয়েব মালিক বিশ্বকাপ শুরুর আগেই অবসরের বার্তা দিয়েছিলেন।

ক্যারিয়ারের শেষ বিশ্বকাপে ফর্মে ছিলেন না শোয়েব। আসরে প্রথম ৩ ম্যাচে সুযোগ পেয়ে দুই ডাকসহ তার রান মাত্র ৮। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অবশ্য ১টি উইকেট পেয়েছিলেন। এমন ব্যর্থতার পর দল থেকে বাদ পড়তে হয়। তার জায়গা সুযোগ পেয়ে কাজে লাগান হারিস সোহেল। যার দরুণ শুক্রবার ক্যারিয়ারের শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচেও দলের একাদশের বাইরে সাইড বেঞ্চে বসে সময় কাটাতে হয়েছে তাকে। তাই ভারতের বিপক্ষে ডাক মারা ইনিংসই তার শেষ ম্যাচ হয়ে থাকলো।

অবসর প্রসঙ্গে শোয়েব বলেন, ‘আমার কোনো আক্ষেপ নেই। কিন্তু আমি ব্যাটিং অর্ডারে একটু বেশিই খাপ খাইয়ে নিয়েছিলাম। দল যেখানে চেয়েছে আমি সেখানেই ব্যাটিং করেছি। আম দল থেকে বহুবার বাদ পড়েছি, আমি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে কয়েক বছর বাইরেও ছিলাম। আমি প্রায় ২০ বছর খেলেছি। তবে এখানে (বিশ্বকাপে) মাত্র দুই ম্যাচ দেখে আমাকে বাদ দেওয়ায় আমি কিছুটা হতাশ।’

পাকিস্তানের জার্সিতে ২৮৭টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলে ৭ হাজার ৫৩৪ রান করেছেন মালিক। গড় ৩৪.৫৫। এছাড়া ক্যারিয়ারে ৩৫টি টেস্ট ও ১১১টি টি-টোয়েন্টি খেলার অভিজ্ঞতাসম্পন্ন মালিক ছিলেন বিংশ শতাব্দীতে (১৯৯৯) অভিষিক্ত হওয়া মাত্র দ্বিতীয় খেলোয়াড় যিনি খেলা চালিয়ে যাচ্ছেন। দ্বিতীয়জন হলেন উইন্ডিজ তারকা ক্রিস গেইল।

পাকিস্তান টি-টোয়েন্টি ও চ্যাম্পিয়ন্স ট্রপি জয়ী দলের সদস্য মালিক এখন টি-টোয়েন্টিতে মনোনিবেশ করার কথা জানিয়েছেন। তবে আপাতত পরিবাবরকে সময় দিতে চান তিনি।

মন্তব্য: