জমকালো আয়োজনের মধ্যে দিয়ে সাতক্ষীরার তেঁতুলিয়া গ্রামে হয়ে গেলো মুস্তাফিজুর রহমান ও্ তার পত্নী্র সামিয়া পারভিনের বউভাত। এই অনুষ্ঠানে আজ বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়স্বজন ও এলাকাবাসী ছাড়াও রাজতিক নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

চলতি বছরের ২২ মার্চ সামিয়া পারভিনের সঙ্গে মোস্তাফিজ জুটি বেঁধেছিলেন। সামিয়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মনোবিজ্ঞান বিভাগে অনার্স প্রথম বর্ষের ছাত্রী। শিমুর বাবা রওনাকুল ইসলাম বাবু মোস্তাফিজুর রহমানের মেজো মামা। মায়ের ইচ্ছায় পারিবারিকভাবেই মামাতো বোন সুমাইয়া পারভীন শিমুকে বিয়ে করেন মুস্তাফিজ।

বৌভাত অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও বর্তমান সাতক্ষীরা-৩ আসনের সংসদ সদস্য ডা. আ ফ ম রুহুল হক, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক সাংসদ মনসুর আলী, সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক মমতাজ আহমেদ, সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপারসহ প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারী, জনপ্রতিনিধি, ব্যবসায়ী, আইনজীবী, সাংবাদিক, শিক্ষকসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ।

শনিবার দুপুরে শুরু হয় বৌভাত অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথিদের আপ্যায়ন। আপ্যায়নের মেন্যুতে ছিল খাসি ও গরুর মাংসের বিরিয়ানি, খাসি ও গরুর মাংসের রেজালা, মুরগির মাংস, ভেটকি, চিংড়ি মাছ, ডিম সেদ্ধ, দই ও ঠান্ডা কোমল পানীয়। রান্না যেন নিখুঁত হয় সকাল থেকে বাবুর্চিদের সঙ্গে কথা বলতে দেখা গেছে মোস্তাফিজকে। অতিথিদের বসার স্থান নিজে তদারকি করেছেন বাংলাদেশ দলের এ পেসার।

উল্লেখ্য, বিশ্বকাপে বল হাতে ২০ উইকেট নিয়ে ১০ জুলাই দেশে ফিরেই গ্রামের বাড়ি চলে যান মুস্তাফিজ। সেখানে আগের থেকেই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। আজ বউভাত শেষে আবার ১৮ জুলাই ঢাকায় ফিরবেন মুস্তাফিজ। এরপর ২০ জুলাই দলের সঙ্গে শ্রীলঙ্কার উদ্দেশ্যে রওনা দেবেন।

মন্তব্য: