বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ও ভারতের অনূর্ধ্ব-২৩ দলের মধ্যকার পাঁচ ম্যাচ সিরিজের প্রথম ম্যাচটি হওয়ার কথা থাকলেও বৃষ্টির কারণে হয়নি। তাই আজ রিজার্ভ ডে’তে খেলা মাঠে গড়ায়। এই ম্যাচে বাংলাদেশ দলের নিয়ন্ত্রীত বোলিংয়ে ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ১৯২ রানের বেশি করতে পারেনি ভারত।

ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব ২৩ দল জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়েছে। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে রানের খাতা খোলার আগেই সাব্বিরের উইকেট হারায় বাংলাদেশ। এরপর ১২ রান করে আউট হন অধিনায়ক সাইফ। দুই ওপেনার হারিয়ে দল যখন বিপদে ঠিক তখন বিদায় নেন ভরসাযোগ্য ব্যাটসম্যান ইয়াসির।

এরপর একে একে সাজঘরে ফেরেন আল-আমিন জুনিয়র (৪) ও জাকের আলি (৩)। স্কোরবোর্ডে ৫০ রান যোগ করার আগেই ৫ উইকেট হারিয়ে যখন দিশেহারা বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব ২৩ দল। তখন দলকেবিপর্যয়ের হাত থেকে বাঁচানোর চেষ্টায় ব্যাটিংয়ে আছেন জাকির হাসান ও আরিফুল হক।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত জাকির (৪২*) ও আরিফুল ২০*) রান নিয়ে ব্যাট করছেন। ৩০ ওভার শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৯১ রান।

এর আগে শুক্রবার লখনৌ এর ভারতরত্ন শ্রী অটল বিহারি বাজপেয়ি ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টসে জিতে ফিল্ডিং নেয় বাংলাদেশ দলে অধিনায়ক সাইফ হাসান। এ সময বোলিংয়ে প্রথম ওভারেই আঘাত হানেন আবু হায়দার রনি। এরপর থেকে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে ভারত। শুধু মাত্র আরিয়ান জুয়াল ৬৯ ও শরতের ৪২ ছাড়া আর কেউই ক্রিজে টিকতে পারেননি বাংলাদেশী বোলারদের বোলিং তোপের মুখে।

বাংলাদেশি বোলারদের মধ্যে মেহেদি হাসান ২৯ রানে নেন ৩টি উইকেট।এছাড়া ২টি করে উইকেট নেন অধিনায়ক সাইফ হাসান ও আবু হায়দার রনি। অন্য দুই উইকেটে নাম লেখান শফিকুল ইসলাম ও রবিউল হক।

বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ দলঃ সাইফ হাসান (অধিনায়ক), ফারদিন হাসান, মাহিদুল ইসলাম, ইয়াসির আলি চৌধুরী, আল আমিন, জাকির হাসান, জাকের আলি, আরিফুল হক, তানভির হাসান, শেখ মেহেদি হাসান, মানিক খান, শফিকুল ইসলাম, সুমন খান, রবিউল হক এবং সাব্বির হোসেন।

মন্তব্য: