গত ১৮ জুলাই জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট বোর্ডের ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগে দেশটির সদস্যপদ কেড়ে নিয়েছিল ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থা আইসিসি। নিষেধাজ্ঞার ফলে আইসিসির কোনো আন্তর্জাতিক ইভেন্টে অংশগ্রহণের যোগ্যতা হারায় জিম্বাবুয়ে। এমনকি অংশ নিতে পারেনি ২০২০ সালে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিতব্য টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাছাইপর্বেও।

তবে আইসিসির বেঁধে দেয়া কিছু শর্ত পূরণ করার পর আবারো সদস্যপদ ফিরে পেলো দেশটি। আইসিসির চেয়ারম্যান শশাঙ্ক মনোহর, জিম্বাবুয়ের ক্রীড়ামন্ত্রী কিরস্টি কভেন্ট্রি, জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটের চেয়ারম্যান তাভেংওয়া মুকুহলানি, আইসিসি প্রধান নির্বাহী মানু সোহনি ও স্পোর্টস অ্যান্ড রিক্রিয়েশন কমিশনের প্রধান জেরাল্ড লতসোয়ারের মধ্যে একটি বৈঠক শেষে জিম্বাবুয়ের উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার কথা জানায় আইসিসি।

নিষেধাজ্ঞা থেকে বেরিয়ে আসতে জিম্বাবুয়ের আন্তরিক প্রচেষ্টার প্রতি সাধুবাদ জানিয়ে আইসিসি প্রধান নির্বাহী মানু সোহনি বলেন, “জিম্বাবুয়ের ক্রিকেটকে আইসিসি সদস্য হিসেবে পুনর্বহালের জন্য ক্রীড়ামন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি রক্ষায় ধন্যবাদ জানাতে চাই।”

তিন মাসের মাথায় আবারও আইসিসির সদস্যপদ ফিরে পাওয়ার ফলে আগামী জানুয়ারিতে হতে যাওয়া অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ এবং পরবর্তীতে আইসিসি সুপার লিগে অংশগ্রহণে আর কোন বাধা থাকছে না জিম্বাবুয়ের। সোমবার দুবাইতে আইসিসির এক সভায় জিম্বাবুয়ের সাথে নেপালকেও শর্তসাপেক্ষে সদস্যপদ ফিরিয়ে দিয়েছে আইসিসি।

মন্তব্য: