ব্রাজিলের পোর্তো আলেগ্রেতে ২৮ জুন শুক্রবার বাংলাদেশ সময় সকাল ৬.৩০ মিনিটে কোপা আমেরিকায় প্যারাগুয়ের বিপক্ষে মাঠে নামে ব্রাজিল। শেষ আটের ম্যাচে টাইব্রেকারে ৪-৩ গোলে জয় পেয়েছে পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

প্যারাগুয়ে যেন ব্রাজিলের কাছে জুজুর মতোই। ২০১১ ও ২০১৫ কোপা আসরে এই প্যারাগুয়ের কাছেই কোয়ার্টার-ফাইনালে হেরে আসর থেকে বিদায় নিয়েছিল ব্রাজিল। তবে শেষ পর্যন্ত টাইব্রেকারে ৪-৩ গোলে জিতে প্রতিশোধ নিল টুর্নামেন্টের আটবারের চ্যাম্পিয়নরা।

গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে পেরুকে ৫-০ গোলের বিশাল ব্যবধানে হারালেও আজকের ম্যাচে যেন সেই ব্রাজিলকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিলোনা। ভুল পাসে বল হারানো আর গোল মিসের মহড়া দেখে মনে হচ্ছিলো আবারো আগের ভুলই বুঝি করতে যাচ্ছে ব্রাজিল। আবারো বুঝি প্যারাগুয়ের কাছে হেরেই বিদায় নিচ্ছে তারা। এমনকি দ্বিতীয়ার্ধের বেশিরভাগ সময় প্যারাগুয়ের ১০ জন ফুটবলার মাঠে থাকার পরও গোলের দেখা পায়নি ব্রাজিল।

প্রথম ১০ মিনিটের আক্রমণাত্মক ব্রাজিলকে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি ম্যাচের পরবর্তী সময়ে। বরং ২৯ তম মিনিটে প্রথম উল্লেখযোগ্য আক্রমণের সুযোগটি পায় প্যারাগুয়ে। সান্তোসের ফরোয়ার্ড দেরলিস গনসালেসের জোরালো শট দারুণ নৈপুণ্যে ঠেকিয়ে জাল অক্ষত রাখেন ব্রাজিল গোলরক্ষক আলিসন।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ৫৪তম মিনিটে ফাবিয়ান বালবুয়েনা ডি-বক্সের মুখে রবের্তো ফিরমিনোকে ফাউল করলে রেফারি পেনাল্টির বেশি বাজান। তবে, পরে ভিএআর প্রযুক্তির সাহায্য নিয়ে পেনাল্টির সিদ্ধান্ত পাল্টে ফ্রি-কিকের বাঁশি বাজান তিনি। কিন্তু ডিফেন্ডার বালবুয়েনাকে সরাসরি লাল কার্ড দেখান।

প্রতিপক্ষের একজন না থাকার সুযোগ কাজে লাগানোর চেষ্টা করেও ব্যার্থ হয় ব্রাজিল। ৭৪তম মিনিটে ম্যানচেস্টার সিটি ফরোয়ার্ড গাব্রিয়েল জেসুস সুযোগ পেলেও ছোট ডি-বক্সের বাইরে থেকে নেয়া তার শট লক্ষভ্রষ্ট হয়। এর ঠিক দুই মিনিট পর এভেরতনের শট একজনের পায়ে লেগে বাইরে চলে যায়।

৮৮তম মিনিটে প্যারাগুয়ে গোলরক্ষক আলেক্স সান্দ্রোর হেড রুখে দেন দারুণ ক্ষিপ্রতায়। দুই মিনিট পর ডি-বক্সের বাইরে থেকে উইলিয়ানের নিচু শট পোস্টে লাগে। যোগ করা সময়ে এভেরতন ও ফিলিপে কৌতিনিয়ো ডি-বক্সে দারুণ জায়গায় বল পেয়েও লক্ষ্যভ্রষ্ট শট নিলে ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকারে।

পেনাল্টি শুট আউটে প্যারাগুয়ের ডিফেন্ডার গুস্তাভো গোমেস প্রথম শটই মিস করে বসেন। তবে পরের তিনটি শটে মিগেল আলমিরোন, ব্রুনো ভালদেস ও মাতিয়াস রোহাস লক্ষ্যভেদ করেন। প্যারাগুয়ের শেষ শট নিতে আসা গনসালেস বল পোস্টের বাইরে মারেন।

ব্রাজিলের হয়ে প্রথম তিন শটে লক্ষভেদ করেন উইলিয়ান, মার্কিনিয়োস ও ফিলিপে কৌতিনিয়ো। তবে রবের্তো ফিরমিনো গোল করতে ব্যর্থ হন। তবে গাব্রিয়েল জেসুসের নিখুঁত শটে শেষ চারে ওঠে স্বাগতিকরা।

মন্তব্য: