চট্টগ্রাম টেস্ট সরিজের ২ ম্যাচের প্রথম টেস্ট ম্যাচের শুরুটা মুটামুটি ভালোই ছিল। বিনা উইকেটে ৭২ রানের ঘরে পৌঁছা ওপেনিং জুটি তামিম ও ইমরুলের পারফরম্যান্স বাংলাদেশ দলের ভিতটাকে শক্ত করেছিলেন। কিন্তু ৭২ রানের মাথায় পেরেরার বলে আউট হয়ে গেলেন তামিম। এর আগে অবশ্য অনেকটা ওয়ানডে-স্টাইলেই ব্যাট চালাচ্ছিলেন তিনি।৫৫ বলে ৫২ রানের ইনিংসে বাউন্ডারি মেরেছেন ৬টি, ছক্কা একটি। তবে প্রত্যাশা অনুসারে তামিমের খেলা ওভাবে দেখা যায়নি।

সে তুলনায় ইমরুল ছিলেন অনেকটাই ধীর-স্থির। ঠিক যেমনটা খেলেন তিনি। কিন্তু উইকেটটাও দিয়ে এসেছেন বড় অসময়ে। ‘চায়নাম্যান’ লক্ষ্মণ সানদাকানের বলে বিভ্রান্ত হয়ে এলবিডব্লু। তাঁর আউটের সঙ্গে সঙ্গেই মধ্যাহ্ন বিরতির ঘোষণা দেন আম্পায়ার। চট্টগ্রাম টেস্টে টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা মনমতো হলেও মধ্যহ্ন বিরতির আগে ২ উইকেট হারিয়ে ফেলাটাই মনে খচখচানি তৈরি করছে।

ইমরুল ৪০ রান করে ফিরেছেন। ৭৫ বলে ৪টি বাউন্ডারি ছিল তাঁর ইনিংসে। তামিমের বিদায়ের পর উইকেটে আসা মুমিনুল হককে বেশ ঝরঝরেই মনে হচ্ছে। ৩৯ বলে ২৬ রান করে অপরাজিত তিনি।মধ্যাহ্ন বিরতির আগে বাংলাদেশ ১২০/২।

শ্রীলঙ্কা পাঁচ বোলার ব্যবহার করেছে সকাল থেকে। শুরুর বোলারদের মধ্যে লাহিরু কুমারা বেশ খরুচে। ৩ ওভার বল করে তিনি দিয়েছেন ২৩। সফল দিলরুয়ান পেরেরা। সুরঙ্গা লাকমল সমীহ আদায় করছেন। অভিজ্ঞ রঙ্গনা হেরাথকে এনে বাংলাদেশের রানের চাকায় লাগাম পড়িয়েছেন। সানদাকান যে ভীতি ছড়াবেন তার ইঙ্গিত তিনি দিয়েই দিয়েছেন।

মন্তব্য: