টস হেরে ব্যাট করতে নামা বাংলাদেশের ইনিংসের শুরুটা ভালোই হয়েছিল। পাওয়ার-প্লের ৭.২ ওভারে বিনা উইকেটে ৬০ রান তোলে টাইগাররা।

দুই দুইবার জীবন ফিরে পাওয়া লিটন দাস দলীয় ৬০ রানের মাথায় ব্যাক্তিগত ২৯ রানে আউট হলে প্রথম উইকেট হারায় বাংলাদেশ। দলীয় ৮৩ রানে মোহাম্মদ নাইম আউট হন ব্যাক্তিগত ৩৬ রানে।

আগের ম্যাচে বাংলাদেশের জয়ের নায়ক মুশফিকুর রহিম আজ বার্থ হয়ে ফেরেন ৪ রানের ইনিংস খেলে। ১৩তম ওভারেই ঝড়ো ব্যাট করা সৌম্য চাহালের বলে স্টাম্পিংয়ের শিকার হন। প্যাভিলিয়নে ফেরার আগে সৌম্য ২০ বলে ২ চার ও ১ ছয়ে ৩০ রানের ইনিংস খেলেন। তখন স্কোরবোর্ডে বাংলাদেশের রান ১৩ ওভারে ৪ উইকেটে ১০৩।

বেশ দেখে-শুনে ইনিংস শুরু আফিফ হোসেনকে বেশিক্ষণ উইকেটে থাকতে দেননি খলিল আহমেদ। ৮ বল মোকাবিলায় আফিফের ব্যাট থেকে আসে ৬ রান। অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ২১ বলে ৪ চারে ৩০ রানের ইনিংস খেলে দীপক চাহারের বলে ক্যাচ তুলে আউট হন। আর তাতেই রানের চাকা থমকে যায় বাংলাদেশের।

শেষদিকে মোসাদ্দেক-বিপ্লবের ব্যাটে আসে ১টি মাত্র বাউন্ডারি। আর তাতেই ২০ ওভার শেষে বাংলাদেশের স্কোর ১৫৩/৬।

ভারতের হয়ে চাহাল দুটি, চাহার, খলিল ও ওয়াশিংটন সুন্দর একটি করে উইকেট নেন।

বাংলাদেশ একাদশঃ লিটন দাস, নাইম শেখ, সৌম্য সরকার, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, আফিফ হোসেন, মোসাদ্দেক হোসেন, আমিনুল ইসলাম, শফিউল ইসলাম, আল-আমিন হোসেন, মুস্তাফিজুর রহমান।

ভারত একাদশঃ রোহিত শর্মা (অধিনায়ক), শিখর ধাওয়ান, লোকেশ রাহুল, শ্রেয়াস আইয়ার, রিশাব পান্ট (উইকেটরক্ষক), শিবম দুবে, ক্রুনাল পাণ্ডিয়া, ওয়াশিংটন সুন্দর, দীপক চাহার, খলিল আহমেদ ও যুজবেন্দ্র চাহাল।

মন্তব্য: