পর্ন দুনিয়া ছেড়ে সানি লিওনের মতো অনেকেই নতুন পেশায় সাফল্য পেয়েছেন। এমন নজির আরো অনেক রয়েছে। তবে এমন ঘটনার কথা ক্রিকেটে কখনোই শোনা যায়নি আগে।

যুক্তরাজ্যের জনপ্রিয় ট্যাবলয়েড ‘দ্য সান’ এর এক আর্টিকেল থেকে জানা যায় এমনটাই হয়েছে সম্প্রতি। ‘দ্য সান’ বলছে, মঙ্গলবার নেলসনে নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ডের মধ্যকার তৃতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে চতুর্থ আম্পায়ার ছিলেন গার্থ স্টিরাট, যিনি কিনা এক সময় পর্নগ্রাফিতে জড়িত ছিলেন।

‘দ্য সান’-এর তথ্য অনুযায়ী, ৫১ বছর বয়সী স্টিরাট আম্পায়ারিং পেশায় আসার আগে নিউজিল্যান্ডের প্রফেশনাল গলফারস অ্যাসোসিয়েশনে ১০ বছর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করেছেন। এই পেশার পাশাপাশি তিনি পর্নগ্রাফিতেও কাজ করেছিলেন।

তবে এ বিষয়টি লোকসম্মুখে যাতে ফাঁস না হয়, সেজন্য নাম পাল্টে ফেলেছিলেন স্টিরাট। পর্ন দুনিয়ায় তার পরিচিতি ছিল ‘স্টিভ পার্নেল’ হিসেবে। কিন্তু গোপন বিষয় কি আর সবসময় গোপন থাকে! নিউজিল্যান্ডের একটি অ্যাডাল্ট ম্যাগাজিনে স্টিরাটের আপত্তিকর ছবি প্রকাশ হওয়ার পর গলফ অ্যাসোসিয়েশনে চাকরি হারান তিনি।

তারপরই স্টিরাট নতুন পেশা হিসেবে বেছে নেন ক্রিকেট আম্পায়ারিংকে। ধীরে ধীরে এই জায়গায় নিজের অভিজ্ঞতা বাড়াতে থাকেন। নারী ক্রিকেটের বেশ কিছু আন্তর্জাতিক ম্যাচে ফিল্ড আম্পায়ার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন আগে। এবার অভিজ্ঞতার খাতায় যোগ হলো নিউজিল্যান্ড-ইংল্যান্ডের মধ্যকার আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ম্যাচটিও।

মন্তব্য: