চলতি বিশ্বকাপে নিজেদের ষষ্ঠ ম্যাচে লড়াইয়ের মুখোমুখি হয় বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া ও বাংলাদেশ। নটিংহ্যামের টেন্ট্র ব্রিজে প্রথমে ব্যাট করে ৫ উইকেট হারিয়ে ৩৮১ রান তুলেছে অস্ট্রেলিয়া। সেই রান তাড়া করতে নেমে ৮ উইকেটে ৩৩৩ রানে শেষ হলো বাংলাদেশের ইনিংস। ৪৮ রানের ব্যবধানে জয় পায় অস্ট্রেলিয়া। বাংলাদেশের হয়ে মুশফিকুর রহিম বিশ্বকাপ ইতিহাসে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ১০২ রানের ইনিংস খেলে অপরাজিত থাকেন।

সাবেক অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার মাইক হাসি মনে করেন বাংলাদেশের বোলিং লাইনটা আর একটু ভালো হলেই বিশ্বক্রিকেটের সেরা একটি দল হবে বাংলাদেশ।

হারের ম্যাচেও বাংলাদেশ ওয়ানডে ক্রিকেটে তাদের সর্বোচ্চ সংগ্রহ পেয়েছে।এই বিশ্বকাপেই ২ বার নিজেদের সর্বোচ্চ সংগ্রহের রেকর্ড ভেঙেছে। ১ম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ৩৩০ রানের সংগ্রহের পর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সংগ্রহ করেছে ৩৩৩ রান।

মাইক হাসি বলেন বাংলাদেশের শেষ পর্যন্ত লড়ে যাওয়ার মানসিকতা তাকে মুগ্ধ করেছে, ‘পুরোটা ম্যাচেই দারুণ প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়েছে। অনেক বড় লক্ষ্য ছিল কিন্তু বাংলাদেশ যেভাবে সে লক্ষ্য তাড়া করেছে তা দেখে আমি অভিভূত। তারা কখনো হাল ছেড়ে দেয়নি। শেষ পর্যন্তই লড়াই করে গেছে।’

শেষে দিকে দ্রুত রান তুলতে থাকছিলেন মুশফিক-মাহমুদউল্লাহ। লক্ষ্যটা ততক্ষণে অনেক কঠিন হয়ে গেলেও আশা রেখেছিলেন টাইগার সমর্থকরা। হাসি জানান, অস্ট্রেলিয়ানরাও নাকি মাঝে ম্যাচ হাতছাড়া হয়ে যাওয়ার ভয় পেয়েছিলেন।

তার ভাষায়, ‘আমার তো মনে হয়েছিল অস্ট্রেলিয়া মাঝে চিন্তায় পড়ে গিয়েছিল। আমি যদি দুই দলের তুলনা করি তাহলে অবশ্যই বলতে পারি বাংলাদেশ ব্যাটিংয়ে অনেক উন্নতি করেছে। কিন্তু বোলিং আক্রমণই দুইদলের মধ্যে পার্থক্য গড়ে দিয়েছে।’

গত কয়েক বছরে বেশ উন্নতি করা বাংলাদেশের এখনো কোথায় ঘাটতি রয়েছে তা দেখিয়ে দিয়েছেন হাসি। তার মতে বোলিং আক্রমণে আরও বৈচিত্র্য এনে উন্নতি করার দরকার। তাহলে র‍্যাঙ্কিংয়ে ওপরের দিকের একটি দল হতে পারবে বাংলাদেশ।

টাইগারদের সামর্থ্যে বিশ্বাস রাখা হাসি বাতলে দেন র‍্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষে ওঠার মন্ত্র, ‘যদি বাংলাদেশ বোলিংয়ে আরও উন্নতি করার দিকে নজর দেয়। আমার মনে, আগামী কয়েক বছরে ভালো মানের স্পিনারের সাথে দুর্দান্ত কিছু পেসার দলে যুক্ত হলে বাংলাদেশ বিশ্ব র‍্যাঙ্কিংয়ে ওপরের দিকের একটি দল হবে।’

মন্তব্য: