সৌম্য-লিটন দুজনই আছেন দারুণ ফর্মে, তাই একাদশ বাছাই করতে একটু ঘাম ঝরাতে হবে টিম ম্যানেজমেন্টকে। টপ অর্ডার নিয়ে বাংলাদেশ এতটা স্বস্তিতে শেষ কবে ছিল তা মনে করা একটু কঠিনই বটে। ফর্মে থাকা ক্রিকেটারদের মধ্যে লড়াই করে বিশ্বকাপ স্কোয়াডে তামিম ইকবালের সঙ্গী হিসেবে জায়গা পেয়েছেন সৌম্য সরকার ও লিটন দাস।

সাম্প্রতিক ফর্ম বিচারে একাদশে থাকার দৌড়ে এগিয়ে আছেন সৌম্যই। সৌম্য ও লিটন দুজনকেই এক ম্যাচে খেলানোর সম্ভাবনা কমই বলা যায়।লিটনের তাহলে কি দারুণ ফর্মে থাকা একাদশে থাকা হবে না?

এসব নিয়ে মোটেও ভাবছেন না তিনি। বরং দলের প্রয়োজনে যেকোনো কিছু করতে রাজি তিনি। প্রয়োজনে ব্যাটিং অর্ডারের অন্য কোনো জায়গায়ও ব্যাট করতে অসম্মতি নেই লিটনের ।

লিটন বলেন, “সুযোগ পেলে তো অবশ্যই চেষ্টা করব ভালো খেলার। সুযোগের অপেক্ষায় থাকব। দলের জন্য যে কোনো কিছুই করতে পারি। টিম ম্যানেজমেন্ট যে দায়িত্বটা দেবে তা পালন করতে চেষ্টা করব”।

লিটন বলেন আমি মনে করি, বাংলাদেশের প্রস্তুতি সব মিলিয়ে ভালো।’
বিশ্বকাপের আগে ত্রিদেশীয় সিরিজ বেশ ফলপ্রসূ হয়েছে বাংলাদেশের জন্য। তিনি বলেন, ‘ত্রিদেশীয় সিরিজ খেললাম, যেটা আমাদের এগিয়ে দিয়েছে। বাংলাদেশে খেললে এই অনুশীলনটা হতো না। আমার কাছে মনে হয় আয়ারল্যান্ডে খেলে আমাদের ভালো হয়েছে। তাছাড়া একটা অনুশীলন ম্যাচ খেলেছি ভারতের বিপক্ষে।

আয়ারল্যান্ডে শুরুতে যে ঠান্ডায় ছিলাম এখন ততোটা ঠান্ডা নেই।’ ইংল্যান্ডের কন্ডিশন নিয়ে দলে এখন আর কোনো অসুবিধা নেই জানিয়ে তার ভাষ্য, ‘বাংলাদেশ টিম এখানে কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিয়েছে।

মন্তব্য: