১৬ জুন ম্যানচেস্টারে মহারণে মুখোমুখি হবে ভারত-পাকিস্তান। এই হাই ভোল্টেজ ম্যাচের দিকে তাকিয়ে বসে আছেন ক্রিকেটপ্রেমীরা। এই ম্যাচ নিয়ে এর মধ্যেই পরিকল্পনা সাজাচ্ছে দুই দলই। এমন পরিস্থিতিতে পাকিস্তানকে ম্যাচ জয়ের টোটকা দিলেন ওয়াকার ইউনুস। নিজের দেশকে ‘এ প্লাস’ ক্রিকেট খেলার পরামর্শ দিয়েছেন ওয়াকার ইউনিস। একই সাথে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালের ম্যাচ থেকে অনুপ্রেরণা নিতে বলেছেন তিনি।

প্রাক্তন পাক অধিনায়কের বক্তব্য, “বছর কয়েক আগে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জয়ের ইতিবাচক দিকগুলো পাকিস্তান দলকে নিতে হবে। ইতিবাচক ভাবেই মাঠে নামতে হবে তাদের।”

ওয়াকার ইউনুস পাক দলের কিছু খামতির কথাও তুলে ধরেছেন। নতুন বলে বিপক্ষের উইকেট তুলতে পারছেন না পাক বোলাররা। আর ভারতের মতো ব্যাটিং লাইন আপের বিরুদ্ধে প্রথম দশ ওভারে উইকেট না তুলতে পারলে যে বিপদে পড়তে হবে মিকি আর্থারের দলকে, তা পরিষ্কার বুঝিয়েও দিয়েছেন তিনি।

ওয়াকার প্রশংসা করেছেন পাক স্পিডস্টার মোহম্মদ আমিরের। টনটনে ফিঞ্চ, ওয়ার্নার, স্মিথদের বিরুদ্ধে আমির যেভাবে বল করেছে তা সত্যিই প্রশংসনীয়। যেখানে বাকি বোলাররা প্রতি ওভারে বাউন্ডারি খাচ্ছে, সেখানে দশ ওভার বল করে ২টি মেডেন নিয়ে ৩০ রান দিয়ে ৫ উইকেট পেয়েছেন আমির। এমনই এ প্লাস পারফর্ম্যান্স ভারতের বিরুদ্ধেও চান ওয়াকার ইউনুস।

ভারতের বিরুদ্ধে দলে পরিবর্তনও চাইছেন এই প্রাক্তন পাক ক্রিকেটার। তাঁর মতে শোয়েব মালিকের মতো ক্রিকেটারকে বসিয়ে শাদাবের মতো তরুণ ক্রিকেটারকে দলে সামিল করা উচিত। এই বিষয়ে পাক দলের কোচ মিকি আর্থারের সঙ্গে কথাও বলেছেন তিনি।

একই সঙ্গে পাকিস্তানকে শুরুর দিকে দেখে খেলার জন্যও পরামর্শ দিয়েছেন ওয়াকার। তার কথায়, “একটা ম্যাচ হেরে পুরনো প্রতিদ্বন্দ্বীর বিরুদ্ধে খেলতে নামা কখনই সহজ নয়। তবে ভারত অবশ্যই অস্ট্রেলিয়া ম্যাচের ওপর পর্যবেক্ষণ করবে। আমার মনে হয় পাক দলকে তার মনোবল বাড়াতে হবে, আশা করি রবিবার তারা নিজের সেরাটাই দেবে।”

ওল্ড ট্র্যাফোর্ডের লড়াইয়ের আগে পরিসংখ্যান বলছে, আইসিসি বিশ্বকাপে ছয়বারের সাক্ষাতে একবারও ভারতকে হারাতে পারেনি পাকিস্তান। ওয়াকার ইউনুসের পরামর্শ কাজে লাগিয়ে এবার সেই হারের বৃত্ত থেকে পাকিস্তান বেরিয়ে আসতে পারবে কিনা সেটাই দেখার বিষয়।

মন্তব্য: