ভারতের মিনি রঞ্জি ট্রফির দ্বিতীয় চার দিনের ম্যাচেও বল হাতে ভেলকি দেখালেন তাইজুল ইসলাম। বেঙ্গালুরুতে ড. ডিওয়াই পাতিল ক্রিকেট অ্যাকাডেমির বিরুদ্ধে নিয়েছেন চারটি উইকেট। তার চার উইকেটের সুবাদে ৩০০/৮ উইকেটে প্রথম দিন শেষ করেছেন স্বাগতিক দল।

চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার টসে হেরে বোলিংয়ে নামে বিসিবি একাদশ। দলীয় ২ রানে উদ্ধোধনী ব্যাটসম্যান মানান বোহরাকে ফিরিয়ে বাংলাদেশকে প্রথম সফলতা এনে দেন পেসার শহিদুল ইসলাম।

পরের ব্যাটসম্যানদের নিয়ে দলকে এগিয়ে নেন সারদেশাই। টপ অর্ডার এই ব্যাটসম্যানের সঙ্গে গড়ে ওঠা টানা চারটি সম্ভাবনাময় জুটি ভাঙেন তাইজুল।
হার্দিক তামোরকে ফিরিয়ে শিকার ধরেন অভিজ্ঞ এই স্পিনার। পরে বিদায় করেন ৩৮ রান করা অধিনায়ক নৌশদ শেখকে। এতে ৯৮ রানে তিন ব্যাটসম্যান হারানো দলে পরিণত হয় স্বাগতিকরা।

তবে অশয় সারদেশাই এবং শুবনাম রঞ্জনে চতুর্থ উইকেটে ৮৬ রানের জুটি গড়েন। এই জুটিতে শূভমনকে ৫০ রান ফিরিয়ে বাংলাদেশে খেলায় ফিরিয়ে আনেন তুাইজুল। ১৭ রান করা সরফরাজ খানকে নিজের চতুর্থ শিকার বানান তাইজুল।

তাইজুলের সঙ্গে আজ বল হাতে আগুণ ছড়িয়েছেন তাসকিন। আজ তিনি ১৯ ওভারে ৫টি মেডেনসহ ৩৩ রান দিয়ে নিয়েছেন ২টি উইকেট। চারটি চার ও তিন ছক্কায় দ্রুত রান তুলতে থাকা আমান খানকে বিদায় করেন তাসকিন। পরবর্তীতে ইকবাল আব্দুল্লাহকে করেন কট বিহাইন্ড।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
ড. ডিওয়াই পাতিল ক্রিকেট অ্যাকাডেমি ১ম ইনিংস: ৯০ ওভারে ৩০০/৮ (হার্দিক ২০, মনন ২, সারদেশাই ১১২, নৌশাদ ৩৮, শুভম ৫০, সরফরাজ ১৭, সাইরাজ ১, আমান ৪৩, ইকবাল ৪, মুকেশ ৪; তাসকিন ১৯-৫-৩৩-২, শহিদুল ১৫-৩-৩৫-১, আরিফুল ৮-৩-১৯-০, তাইজুল ৩০-৫-১৩৫-৪, নাঈম ১৮-৩-৭০-১)

মন্তব্য: