বিশ্বকাপের ফাইনালে কুমার ধর্মসেনার নেওয়া ভুল সিদ্ধান্তে শিরোপা হাতছাড়া হয়েছে নিউজিল্যান্ডের। যা নিয়ে শুরু থেকেই সমালোচনা করেছেন সাবেক ক্রিকেটাররা। এতদিন চুপ ছিলেন ধর্মসেনা। তবে এবার নিজের ভুল স্বীকার করে নিলেন তিনি।

লর্ডসের ফাইনালে শেষ ওভারের চতুর্থ বলে দ্বিতীয় রান নেওয়ার প্রচেষ্টায় নিজেকে বাঁচাতে ডাইভ দিয়েছিলেন বেন স্টোকস, মার্টিন গাপটিলের থ্রো তার ব্যাটে লেগে বল পেরিয়ে যায় সীমানা। দৌড়ে ২ আর ওভার থ্রো থেকে ৪ মিলিয়ে ইংল্যান্ডকে ৬ রান দেন আম্পায়ার ধর্মসেনা।

শেষ পর্যন্ত ম্যাচ যায় সুপার ওভারে। এরপর সুপার ওভারও টাই হলে বাউন্ডারির সংখ্যায় নিউজিল্যান্ডের চেয়ে এগিয়ে থেকে শিরোপা জেতে ইংল্যান্ড।

ফাইনালের পরের দিন অস্ট্রেলিয়ান আম্পায়ার সাইমন টফেল বলেন, ইংল্যান্ড আসলে ৫ রান পেত। কারণ গাপটিল যখন থ্রো করেন, তখন দুই ব্যাটসম্যান বেন স্টোকস ও আদিল রশিদ একে অপরকে ক্রস করেননি।

নিজ দেশের প্রথমসারির পত্রিকা দ্য আইল্যান্ডকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ধর্মসেনা বলেন, ‘‘আমি আমার সহকর্মী মারাইস ইরাসমাসের সঙ্গে পরামর্শ করেই কল দিয়েছি। এটা নো বল এবং ওয়াইড বলের মতো কল, তাই আমি থার্ড আম্পায়ারের সঙ্গে পরামর্শ করতে পারিনি। আমি শতভাগ নিশ্চিত ছিলাম ব্যাটসম্যানরা একে অপরকে ক্রস করেছেন। দেখে মনে হলো সে পপিং ক্রিজে প্রায় পৌঁছে গিয়েছিল।’’

কিন্তু ধর্মসেনা এখন নিজেই অনুতপ্ত, ‘‘আমি স্বীকার করছি যে আমি ভুল ছিলাম। আমি এটাও স্বীকার করছি এই নিয়মের পরিবর্তন দরকার। যদি বল স্টাম্পে আঘাত করে এবং বাউন্ডারি হয়, তাহলে ঠিক আছে। কিন্তু ব্যাটে বা ব্যাটসম্যানের গায়ে হিট করার মুহূর্তে বলটা ডেথ বল হয়ে যাওয়া উচিত।’’

মন্তব্য: