লা লিগা ছাড়বেন না মেসি-রোনালদো – মেনদিয়েতা

Gandka Mendieta
স্পেনের জার্সিতে গাইসকা মেনদিয়েতা। ফাইল চিত্র

গাইসকা মেনদিয়েতা, নামটার এখন অতটা উচ্চারিত না হলেও ২০০২ সালের ফুটবল বিশ্বকাপে স্পেনের হয়ে গোল করেছিলেন স্প্যানিশ এই তারকা। তাছাড়া ক্লাবের খেলাগুলোতেও ছিল তাঁর দারুন দাপট। ভ্যালেন্সিয়া, বার্সেলোনার মত ক্লাবগুলোতে তার অবদান ছিল অনন্য। এছাড়াও, ভ্যালেন্সিয়াকে দু’বার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালেও তুলেছিলেন। সম্প্রতি গাইসকা মেনদিয়েতা লা লিগার অ্যাম্বাসাডর হিসেবে ভারত সফর করেছেন তিনি। মেনদিয়েতা হাজার ব্যস্ততার মাঝেও সময় বের করে মুম্বাই থেকে ফোনে সাক্ষাৎকার দিয়েছিলেন কলকাতার আনন্দবাজার পত্রিকাকে। সাক্ষাৎকারটি বিডি স্পোর্টস নিউজ পাঠকদের জন্য হুবুহু তুলে দেয়া হলো।

প্রশ্ন: বার্সেলোনা তো এবারের লা লিগা জিতেই গিয়েছে বলে মনে হচ্ছে। রবিবার আটলেটিকো মাদ্রিদ কি লিওনেল মেসিদের জয়রথ থামাতে পারবে?

গাইসকা মেনদিয়েতা: বার্সেলোনা লিগ জিতে গিয়েছে বলাটা ভুল হবে। এই শেষের দিকের ১০-১৫টা ম্যাচ কিন্তু কঠিন হয়ে যায়। যে কোনও সময় বড় দল পয়েন্ট নষ্ট করতে পারে। আর আটলেটিকো মাদ্রিদ এর আগেও বার্সেলোনাকে থামিয়েছে। এ বারও সে রকম কিছু হলে অবাক হব না। দিয়েগো সিমিওনে জানে, বার্সেলোনা ম্যাচ থেকে পুরো পয়েন্ট তুলতে পারলে কিন্তু লিগ জমিয়ে দেওয়া যাবে। বার্সাকে তাই সতর্ক থাকতে হবে।

প্রশ্ন: নেইমারকে হারানোর ঘাটতিটা তা হলে পুষিয়ে দিতে পেরেছে বার্সা?

মেনদিয়েতা: রেজাল্ট তো তাই বলছে, তাই না? কোনও সন্দেহ নেই নেইমার দারুণ ফুটবলার। কিন্তু বার্সেলোনার হাতে রসদ আছে নেইমারের অভাব ঢেকে দেওয়ার। ভালভার্দে দারুণ ভাবে ফুটবলারদের কাজে লাগাচ্ছে। টিমটার মধ্যে একটা ভারসাম্য এনেছে। আরও বেশি করে জর্ডি আলবা-কে কাজে লাগাচ্ছে। ইনিয়েস্তাকে সুন্দর করে ব্যবহার করছে। নেইমার চলে যাওয়ায় তাই কোনও সমস্যা হচ্ছে না।

প্রশ্ন: বার্সেলোনার হয়তো সমস্যা নেই। কিন্তু রিয়াল মাদ্রিদের কী হল? মৌসুমে পাঁচটা হার?

মেনদিয়েতা: হ্যাঁ, জানি। আসলে গত কয়েক বছর ধরে রিয়াল সব ট্রফি জিতে এসেছে। এ রকম খেলার মান ধরে রাখাটা কঠিন। বিপক্ষ সব সময় আপনার খেলার বিশ্লেষণ করে চলেছে। তার ওপর আমি বলব এ বার রিয়াল এমন কয়েক জনকে বিক্রি করেছে, যার ফল ভুগতে হচ্ছে। এক জনের কথা অবশ্যই বলব। আলভারো মোরাতা। কিন্তু তাও রিয়াল হল রিয়াল। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে কী হয় দেখুন।

প্রশ্ন: চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ভাল করতে না পারলে কি জিনেদিন জিদানের চাকরি যাওয়ার আশঙ্কা থাকবে?

মেনদিয়েতা: হুম, থাকতেই পারে। আসলে কী জানেন ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ (রিয়াল মাদ্রিদ প্রেসিডেন্ট) এমন লোক ও যা খুশি তাই করতে পারে। দেখা যাক কী হয়। এখনই নিশ্চিত কিছু বলা যাচ্ছে না।

প্রশ্ন: লা লিগা বলতে আমরা সবার আগে বুঝি ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ও লিওনেল মেসিকে। এরা দু’জন যদি স্প্যানিশ লিগ ছেড়ে অন্যত্র চলে যায়, তা হলে তো আপনাদের লিগের জৌলুস পুরোপুরি শেষ হয়ে যাবে।

মেনদিয়েতা: কেন? ওরা বিশ্বের সেরা লিগ ছেড়ে যাবে কেন?

প্রশ্ন: এই তো শোনা যাচ্ছে, রিয়াল নিয়ে খুশি নয় রোনালদো। ইপিএলের ক্লাবে যাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হচ্ছে। ক্যাটালোনিয়া সমস্যার জন্য মেসির ভাগ্য নিয়েও তো প্রশ্ন উঠছে। তা হলে?

মেনদিয়েতা: আপনারা গুজবে কান দেবেন না। বার্সেলোনায় মেসি খুব খুশি আছে। ওর জন্য বার্সাই সেরা ক্লাব। যেমন রোনালদোর জন্য রিয়ালই সেরা। ওদের সঙ্গে ক্লাবের চুক্তিও হয়ে গিয়েছে। আপনারা নিশ্চিন্ত থাকতে পারেন, মেসি-রোনালদো লা লিগাতেই থাকবে।

প্রশ্ন: আপনি এই দুই কিংবদন্তিকে খুব কাছ থেকে খেলতে দেখেছেন। আপনাকে যদি বলা হয়, এদের দু’জনের মধ্যে একজনকে দলে রাখতে, তা হলে কাকে বাছবেন?

মেনদিয়েতা: একজনকে কেন বাছতে যাব? দু’জন দু’ধরনের ফুটবলার। রোনালদো বিশ্বের সেরা স্ট্রাইকার। আর মেসি হল গেমমেকার। ফুটবল ইতিহাসের অন্যতম সেরা খেলোয়াড়। আমি তো দু’জনকে এক সঙ্গেই খেলাব (হাসি)।

প্রশ্ন: মেসি আর রোনালদোর সব চেয়ে বড় অস্ত্রটা কী?

মেনদিয়েতা: রোনালদোর সব চেয়ে বড় অস্ত্র হল ওর গোল করার ক্ষমতা। অবিশ্বাস্য সব গোল করতে পারে। অন্য দিকে মেসি হল টোটাল ফুটবলার। মেসির একটা নয়, বেশ কয়েকটা অস্ত্র আছে। ও গোল করতে পারে, মাঝমাঠ থেকে খেলা তৈরি করতে পারে। দুর্দান্ত সব পাস বাড়াতে পারে। মেসি হল সত্যিকারের প্রতিভাবান।

প্রশ্ন: তা হলে কি বলা যায় মেসি হল ঈশ্বরপ্রদত্ত প্রতিভা আর রোনালদো পরিশ্রমের মাধ্যমেই এই জায়গায় এসেছে?

মেনদিয়েতা: রোনালদোও প্রতিভাবান। কিন্তু ঘটনা হল, শুধু প্রতিভা থাকলেই তো হয় না। পরিশ্রমের মাধ্যমে সেই প্রতিভাকে ফুটিয়ে তুলতে হয়। যেটা এই দু’জন করেছে। আমার মনে হয় না, বিশ্ব ফুটবলের ইতিহাসে এক সঙ্গে এমন দু’জন ফুটবলার কখনও এসেছে বলে। আমরা সত্যিই ভাগ্যবান, মেসি- রোনালদোকে এক সঙ্গে খেলতে দেখছি।

প্রশ্ন: আপনি স্পেন, ইংল্যান্ড মিলিয়ে প্রায় চারশো লিগ ম্যাচ খেলেছেন। এই মুহূতে যদি বিশ্বের সেরা তিনটে লিগকে র‌্যাঙ্কিং করতে বলা হয়, তা হলে কী করবেন?

মেনদিয়েতা: আমি এক নম্বরে রাখব লা লিগাকে। দুইয়ে ইপিএল। তিনে বুন্দেসলিগা।

প্রশ্ন: কেন বলছেন? ইপিএলে তো প্রতিদ্বন্দ্বিতা অনেক বেশি?

মেনদিয়েতা: লা লিগায় বিশ্বের সেরা ফুটবলাররা খেলে। বিশ্বের সেরা সব ক্লাব খেলে। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে আমাদের যেমন আধিপত্য আছে, ইউরোপা লিগেও আমাদের ক্লাবের রমরমা। যেমন সেল্টা ভিগো, অ্যাথলেটিক বিলবাও।

প্রশ্ন: কিন্তু ইপিএলে দুই ম্যানচেস্টার আছে, চেলসি আছে। ওরাও কি কম শক্তিশালী?

মেনদিয়েতা: একটা কথা বলুন তো। যদি রিয়াল মাদ্রিদ, বার্সেলোনা ইপিএলে খেলে, তা হলে কারা জিতবে বলে আপনার মনে হয়?

প্রশ্ন: লা লিগার ক্লাবগুলোই বোধহয়!

মেনদিয়েতা: ধন্যবাদ। ঠিক বলেছেন। ইপিএল বা অন্য কোনও লিগের ক্লাবগুলোর পক্ষে রিয়াল-বার্সার সঙ্গে এঁটে ওঠা কঠিন। তাই লা লিগাই বিশ্বের সেরা লিগ। (পরিসংখ্যান বলছে বিশ্ব জুড়ে এখন তিন কোটি ৭০ লাখের ওপর দর্শক লা লিগা দেখেন)
সূত্র:আনন্দবাজার পত্রিকা

আরও পড়ুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *