টেস্টের প্রথম ও তৃতীয় দিনের প্রায় পুরোটা বৃষ্টিতে ভেসে যাওয়ার ড্র ছিল লর্ডস টেস্টের অনুমিত ফল। সেটাই হয়েছে। তবে এই টেস্টেই ক্রিকেট ইতিহাসে অনেক ঘটনার সাক্ষী হয়েছে।

প্রথম ইনিংসে জোফরা আর্চারের বাউন্সারে মাথায় আঘাত পেয়েও স্টিভেন স্মিথের ৯২ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলা। ক্রিকেট ইতিহাসের প্রথম ‘কনকাশন’ বদলি হিসেবে খেলতে নামার ইতিহাস গড়া মার্নাস লাবুশেনের ব্যাট হাতে লড়াই।

মাত্রই কিছুদিন আগে আইসিসি তাদের নিয়মে এই সাব-এর অন্তর্ভূক্তি এনেছে। যেখানে কোনো ক্রিকেটার মাথায় আঘাত পেয়ে মাঠ ছাড়লে তার বদলি ক্রিকেটার ফিল্ডিংয়ের পাশাপাশি ব্যাটিংও করেন।

লাবুশেনের অস্ট্রেলিয়ার হয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ফিল্ডিংয়ের পর ব্যাটিংয়ে একশো বল ব্যাট করে ৮টি বাউন্ডারি থেকে ৫৯ রান করেন তিনি। চতুর্থ উইকেটে তাকে যোগ্য সঙ্গ দেন ট্রভিস হেড। ৮৫ রানের জুটি গড়ার পর লাবুশেনের ফিরে গেলেও ব্যাক্তিগত ৪২ রানে অপরাজিত থেকে হেড ড্রয়ের দিকে ধাবিত করে।

টস হেরে প্রথমে ব্যাট করে ইংল্যান্ড প্রথম ইনিংসে ২৫৮ রান করেছিল। জবাবে স্টিভেন স্মিথের লড়াকু ৯২ রানের ইনিংসে ভর করে ২৫০ রানে অলআউট হয় অস্ট্রেলিয়া। দ্বিতীয় ইনিংসে ইংলিশ ব্যাটসম্যান বেন স্টোকসের অরপাজিত ১১৫ রানে ভর করে ৫ উইকেটে ২৫৮ রানে ইংনিংস ঘোষণা দিলে জয়ের জন্য ২৬৭ রানের লক্ষ্য পায় অসিরা। এরপর অস্ট্রেলিয়া ৬ উইকেটে ১৫৪ রান করার পর ম্যাচটি ড্র হয়।ম্যাচ শেষে সেরার পুরস্কার ওঠে বেন স্টোকসের হাতে।

মন্তব্য: