ক্রিকেট উত্‍সবে নতুন আশঙ্কা। সন্ত্রাসবাদী হামলা হতে পারে আইপিএলে খেলতে আসা ক্রিকেটারদের উপর। এমনটাই জানা গিয়েছে সন্দেহভাজন জঙ্গিদের জিজ্ঞাসাবাদ করে। নিরাপত্তা সংক্রান্ত একাধিক এজেন্সি সূত্রে এমনটাই খবর পাওয়া যাচ্ছে। নিরাপত্তা সংক্রান্ত এজেন্সিগুলিকে হাই অ্যালার্টে রাখা হয়েছে।

ভারতে গত প্রায় দেড় বছর ধরে উত্তরপ্রদেশ-সহ উত্তর ভারতের বিস্তীর্ণ এলাকায় ধরপাকড় শুরু করেছে অ্যান্টি টেরর স্কোয়াড (এটিএস)। ইতিমধ্যেই সফলভাবে একাধিক জঙ্গি মডিউল ভাঙতে সক্ষম হয়েছে এই সন্ত্রাস দমন শাখা। ভারতীয় গণমাধ্যম ‍গুলোর খবর, এমনই এক মডিউলের জঙ্গিদের জিজ্ঞাসাবাদ করে পাওয়া গিয়েছে বিস্ফোরক তথ্য।

জানা গিয়েছে, মুম্বাইয়ে আইপিএলের ম্যাচ চলাকালীন হামলা চালানোর ছক কষছিল জঙ্গিরা। জিজ্ঞাসাবাদে জঙ্গিরা স্বীকার করেছে, স্টেডিয়াম থেকে হোটেলে যাওয়ার পথে বা হোটেলে ক্রিকেটারদের উপর হামলা করার প্রাথমিক ছক কষে ফেলেছিল তাঁরা। এমনকী, হোটেল ট্রাইডেন্ট থেকে ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়াম পর্যন্ত কয়েক দফায় রেইকিও করেছে। কোথায় হামলা চালানো যেতে পারে তাও ঠিক করার প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গিয়েছিল।

জিজ্ঞাসাবাদে এই তথ্য পাওয়ার পরই হাই অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে নিরাপত্তারক্ষীদের মধ্যে। ইতিমধ্যেই, কেন্দ্রীয় এজেন্সির তরফে মুম্বাই পুলিশকে নিরাপত্তা বাড়াতে নির্দেশও দেওয়া হয়েছে। হোটেল এবং রাস্তায় মোতায়েন করা হচ্ছে অতিরিক্ত পুলিশ বাহিনী। এমনকি ক্রিকেটারদের মাঠ থেকে হোটেল এবং হোটেল থেকে মাঠ পর্যন্ত নিরাপত্তা দেবে মার্কসম্যান কমব্যাট ভেহিকল (এসসিভি)। মুম্বাই পুলিশ ইতিমধ্যেই ক্রিকেটারদেরও সতর্ক করে দিয়েছে। নিরাপত্তা ছাড়া ক্রিকেটারদের হোটেলের বাইরে বের হতে বারণ করা হয়েছে।

ভারতে লোকসভা ভোটের জন্য এমনিতেই গোটা দেশে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা জারি করা হয়েছে। লোকসভার মধ্যে আইপিএলের নিরাপত্তা নিয়ে আগে থেকেই চিন্তিত ছিলেন আয়োজকরা। অনেক ভেবেচিন্তে যখন যে রাজ্যে ভোট নেই, তখন সেই রাজ্যের ক্রীড়াসূচি তৈরি করা হয়েছে। তা সত্ত্বেও অশান্তির আশঙ্কা কিছুতেই যাচ্ছে না।

মন্তব্য: