চ্যাম্পিয়ন্স লিগে কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগে ম্যানইউর মাঠ থেকে ১-০ গোলের জয় নিয়ে ফিরেছে বার্সা। ম্যাচের একমাত্র গোলে বড় বেশি অবদানটা লুক শোর। স্বাগতিক ডিফেন্ডার বার্সার দুর্দান্ত আক্রমণটি ঠেকাতে গিয়ে উল্টো কুড়াল মেরেছেন নিজেদের জালেই! সেই গোলই ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে প্রথমবারের মতো জয়ের স্বাদ দিয়েছে কাতালানদের। এর আগে ম্যানইউয়ের মাঠে চারটি ম্যাচের কোনটিতেই জয়ের মুখ দেখেছিল না বার্সা। দুইটি করে ছিলো ড্র এবং পরাজয়।

ম্যাচের ১২ মিনিটের সময় একটি আক্রমণ ঠেকাতে গিয়ে লুক শ’র আত্মঘাতী গোলে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। বক্সের ভেতর মেসি বল উড়িয়ে মেরেছিলেন লুই সুয়ারেজের দিকে। উরুগুইয়ান স্ট্রাইকারের হেড শ’র গায়ে লেগে জড়িয়ে যায় পোস্টে।

এ গোলের পর লাইন্সম্যান অফসাইডের পতাকা তুলেছিলেন। তবে ভিএআরে দেখা যায় অফসাইড ছিলেন না সুয়ারেজ। তাতে আত্মঘাতী গোলে লিড নেয় বার্সেলোনা।

রাশফোর্ড দুই অর্ধে দু’টি এবং সুয়ারেজ দ্বিতীয়ার্ধে একটি গোলের সম্ভাবনা তৈরি করলেও ফিনিশিং টাচ দিতে পারেননি৷ মাঝে স্মালিংয়ের অবৈধভাবে মেসিকে আটকানোর চেষ্টায় তাঁকে রক্তাক্ত করার ঘঠনা ছাড়া উল্লেখযোগ্য কোনও মুভমেন্ট চোখে পড়েনি ম্যাচে৷

সারা ম্যাচে প্রায় ৬৭ শতাংশ বল পজেশন ছিল মেসিদের পায়ে। সুযোগও পেয়েছিলেন তারা, কিন্তু গোলের ব্যবধান বাড়ানি। অন্যদিকে এদিন ম্যানইউ জার্সিতে বেশ হতাশ করলেন তারকা ফুটবলার পল পোগবা। তাঁর সঙ্গে আপফ্রন্টে এদিন তেমন ভাবে পাওয়া যায়নি তরুণ তারকা র‍্যাশফর্ডকেও।

ফলে প্রথম লেগে অ্যাওয়ে গোলের সুবাদে, দ্বিতীয় লেগে ঘরের মাঠে কিছুটা অ্যাডভান্টেজ নিয়েই শুরু করবে বার্সেলোনা।আগামী মঙ্গলবার বার্সেলোনার মাঠ ক্যাম ন্যুতে হবে কোয়ার্টার ফাইনালের দ্বিতীয় লেগ। সেখানে ড্র করলেই শেষ চারের টিকেট পাবে পাঁচবারের চ্যাম্পিয়নরা।

মন্তব্য: