কাম্প ন্যুতে রোববার রাতে লেগানেসের বিপক্ষে ‘তিন তারকা’র সৌজন্যে ৩-১ গোলের জয় পেয়েছে বার্সেলোনা। পরিবর্ত খেলোয়াড় হিসেবে নেমে শেষ মুহূর্তে মেসির গোলে ঘরের মাঠে পূর্ণ পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ে বার্সোলেনা৷ ম্যাচের অন্য দুটি গোল করেন সুয়ারেজ ও ডেম্বেলে। ম্যাচের ৫৭ তম মিনিটে লেগানেসের হয়ে গোল শোধ করে ফেলেন ব্রাথওয়েট৷

বার্সা কোচ ভালভারদে এই ম্যাচের প্রথম একাদশে রাখেননি মেসি, ভিদাল, রাকিটিচদের৷ ডেম্বেলের সঙ্গে ম্যাচ শুরু করান সুয়ারেজ-কুতিনহো জুটিকে দিয়ে৷ ৩২ মিনিটে জোর্দিআলবার পাস থেকে ডেম্বেলে গোল পেয়ে যাওয়ায় ভালভারদের স্ট্র্যাটেজি সফল মনে হচ্ছিল৷ লা লিগায় প্রায় এক মাস পর গোল পান তিনি। ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় বার্সা।

দ্বিতীয়ার্ধে ছবিটা বদলে যায় লেগানেস গোল শোধ করে দেওয়ায়৷ ৫৭ মিনিটে এন নেসিরির পাস থেকে ব্রাথওয়েট বার্সেলোনার জালে বল জড়িয়ে দেন৷ ৬৪ মিনিটে জোড়া ফুটবলার পরিবর্তনে মেসি-রাকিটিচকে মাঠে নামান বার্সা কোচ৷ মেসি মাঠে নামাতে বার্সার আক্রমণে তীব্রতা আসে৷ ৭১ মিনিটে মেসির শট লেগানেস গোলকিপারের দস্তানায় প্রতিহত হলে সুয়ারেজ ফিরতি বল জালে জড়ান৷

এই গোলের সঙ্গে সঙ্গেই উরুগুইয়ান তারকা বার্সেলোনার সর্বকালীন সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিয়ার প্রথম পাঁচে ঢুকে পড়েন৷ বার্সেলোনার হয়ে সুয়ারেজের এটি ১৬৭তম গোল৷ ইনজুরি টাইমে (৯০+২) আলবার পাস থেকেই বার্সেলোনার হয়ে ম্যাচে তৃতীয় গোলটি করেন মেসি৷

বার্সা সব প্রতিযোগিতায় এই নিয়ে টানা সাত ম্যাচ অপরাজিত। ২০ ম্যাচে ১৪ জয় ও চার ড্রয়ে শীর্ষে থাকা দলটির পয়েন্ট ৪৬। হুয়েস্কাকে ৩-০ গোলে হারানো আথলেতিক মাদ্রিদ ৫ পয়েন্ট কম নিয়ে আছে দ্বিতীয় স্থানে। রিয়াল মাদ্রিদ ৩৬ পয়েন্ট নিয়ে তিন নম্বরে। চতুর্থ স্থানে থাকা সেভিয়ার পয়েন্ট ৩৩।

মন্তব্য: