BDSports News,ইমরুল,বাংলাদেশ,এশিয়াকাপ

ছবিঃ ইমরুল



অনেক তর্ক বিতর্ক ছিল গতকালের একাদশ নিয়ে,সংযোজন বিয়োজন করা হয়েছে অনেক ভাবেই তার পরেও এশিয়া কাপে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে দাঁড়াতেই পারেনি বাংলাদেশ। পরের ম্যাচে সুপার ফোরে ভারতের বিপক্ষেও বাজেভাবে হেরেছে বাংলাদেশ। মূল কারণ হিসেবে ওপেনারদের ব্যর্থতা চিহ্নিত করেছিল বিসিবি। ফলে মাত্র একদিনের নোটিশে উড়িয়ে নিয়ে আসা হয়েছিল ওপেনার ইমরুল কায়েস ও সৌম্য সরকারকে। বিসিবির হাইপারফরম্যান্স দলের হয়ে খেলছিলেন তাঁরা। তবে গতকাল নিজেদের সুপার ফোরের দ্বিতীয় ম্যাচে দলে স্থান পেয়েছিলেন শুধু ইমরুল কায়েস। বাদ পড়েছেন মুমিনুল হক ও মোসাদ্দেক হোসেন। তবে ওপেনার ইমরুল কায়েস ছয়ে নেমেই প্রমাণ করেছেন নিজেকে।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী একদমই ফর্মে ছিলেন না ইমরুল। তাই সীমিত ওভারের ক্রিকেটে দলে সুযোগ পাননি প্রায় ১১ মাস। সেই ইমরুল কায়েসকে দলে নিয়ে নামানো হয়েছিল ছয়ে! এর আগেই ইমরুল কায়েস ওপেনিংয়ের বাইরে তিনে খেলতেও আপত্তি জানিয়েছিলেন। তবে সেই ইমরুলই ছয়ে নেমে খেলেন ৭২ রানের এক দুর্দান্ত অপরাজিত ইনিংস। সাতে নামা মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে ১২৮ রানের জুটি গড়ে দলকে ২৪৯ রানের লড়াকু সংগ্রহ এনে দেন এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। স্পিন ভালো খেলতে পারেন বলে দলে নেওয়া হয়েছিল ইমরুলকে।

ব্যাটসম্যানদের যাওয়া-আসার ভিড়ে হাল ধরেন ইমরুল কায়েসই। নাজমুল হোসেন শান্ত আউট হলে তিনে মোহাম্মদ মিঠুনকে নামতে দেখে আশ্চর্যই হয়েছিলেন ভক্তরা। তবে মিঠুন দ্রুত আউট হয়ে গেলে মাঠে নামেন মিস্টার ডিপেন্ডেবল মুশফিক। লিটন দাস ও মুশফিক যখন উইকেট বিপর্যয় কেবল কাটিয়ে উঠছেন, তখনই রশিদ খানের বলে ক্যাচ তুলে দেন লিটন দাস। লিটন আউট হওয়ার পরে নামেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। তবে একই ওভারে দুই ব্যাটসম্যানের ভুল বোঝাবুঝির কারণে আউট হন সাকিব। তখনই নেমে বল বুঝে খেলতে চেষ্টা করেন ইমরুল কায়েস। একটু পরেই একইভাবে মুশফিক রানআউট হয়ে গেলে আরেকটি বিপর্যয়ে পড়ে টাইগাররা। মাহমুদউল্লাহকে নিয়ে সেটিকে ভালোভাবেই সামাল দিয়েছেন ইমরুল কায়েস।

দুবাই এসে দেড় ঘণ্টার দূরত্বে আবুধাবিতে পৌঁছে এক রকম অনুশীলন ছাড়াই মাঠে নামেন ইমরুল। দলে ছয় নম্বরে নেমে থিতু হয়ে যেভাবে সব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করেন তিনি, তা প্রশংসিত হয়েছে ভক্তদের কাছে। অঘোষিত সেমিফাইনালে পাকিস্তানের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। জয়ের জন্য এভাবেই নিজেকে উজাড় করে খেলতে হবে খেলোয়াড়দের, তা দেখিয়ে দিয়েছেন ইমরুল। সমালোচনার উপযুক্ত জবাব দিয়েছেন বটে, তবে এমন জবাব প্রতি ম্যাচেই চাইবে ভক্তরা।

মন্তব্য: