গেল শনিবার আইপিএলে হায়দরাবাদের বিপক্ষে জয় দিয়ে আসর শেষ করেছিল বিরাট কোহলির দল রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু। তবে এই ম্যাচ শেষ হলেও মাঠে ঘটে যাওয়া বিতর্কের রেশ রয়ে গেছে। বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে যতটা না আছেন বেঙ্গালুরু অধিনায়ক বিরাট কোহলি তার চেয়ে বেশি আছেন ম্যাচ পরিচালনায় মাঠে থাকা আম্পায়ার নাইজেল লং।

এদিন টসে জিতে প্রথমে বোলিংয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বেঙ্গালুরু। তবে ইনিংসের শেষ ওভারে আম্পায়ারের একটি সিদ্ধান্তে তর্কে জড়ান কোহলি। উমেশ যাদবের করা ২০তম ওভারের একটি বল নো ডেকেছিলেন আম্পায়ার লং। কিন্তু টিভির ভিডিয়োতে দেখা যায় যে, উমেশের পা স্ট্যাম্পের পিছনেই ছিল। উমেশ এবং বিরাট দুজনেই আম্পায়ারের এই সিদ্ধান্তে দুঃখপ্রকাশ করেন। এ সময় অল্পবিস্তর কথা কাটাকাটিও হয় আম্পায়র ও কোহলির মধ্যে।

এই ঘটনার পরিপেক্ষিতেই চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামের আম্পায়ার রুমের দরজাই ভেঙে ফেলেন লং। এক প্রত্যক্ষদর্শীর কথায়, হায়দরাবাদের ইনিংস শেষ হতেই রেগে গিয়ে আম্পায়ার রুমের দরজাই ভেঙে দেন লং। দরজা ভেঙে ফেলার খেসারতও দিতে হয়েছে ৫০ বছরের ওই আম্পায়ারকে। এই ঘটনায় চিন্নাস্বামী স্টেডিয়াম কর্তৃপক্ষকে ৫০০০ টাকা ক্ষতিপূরণ দিয়েছেন নাইজেল লং।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামের সেক্রেটারি সুধাকর রাও-এর কথায়, “খুবই দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা এটা। সিইও এর কাছে বিষয়টা আমরা নিশ্চয়ই জানাব।”

মন্তব্য: