বিশ্বকাপ আসরে প্রথম দুই ম্যাচ হেরে চাপে রয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। তবে এই অসময়ে আরো বড় একটি দু:সংবাদ পেলো প্রোটিয়ারা। কাঁধের চোটের কারণে শেষ হয়ে গেল দক্ষিণ আফ্রিকার পেসার ডেল স্টেইনের বিশ্বকাপ মিশন। ৩৫ বছর বয়সী এই পেসারের এটিই শেষ বিশ্বকাপ ছিল।

ইনজুরির জন্য বিশ্বকাপ আসরে প্রথম দুই ম্যাচের একাদশে ছিলেন না স্টেইন। তবে আশা ছিল পর্যাপ্ত বিশ্রামে ভারতের বিরুদ্ধে তৃতীয় ম্যাচ থেকে তিনি মাঠে নামতে পারবেন৷ জ্যাক কালিসের মতো প্রোটিয়া প্রাক্তনরা দাবি করছিলেন যে, আধা-ফিট হলেও ভারতের বিরুদ্ধে স্টেইনকে খেলানো উচিত দক্ষিণ আফ্রিকার৷ সেই সম্ভাবনা অবশ্য সমূলে বিনষ্ট হয়৷

ভারত বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা ম্যাচের ২৪ ঘণ্টা আগে প্রোটিয়া অধিনায়ক ফাফ দু প্লেসিস জানিয়ে দিলেন, চোটের কারণে ছিটকে যাচ্ছেন তাঁদের দলের সব থেকে অভিজ্ঞ ক্রিকেটার। স্টেইনের পরিবর্তে দলে সামিল করা হচ্ছে বাঁ হাতি সিমার হেনরিকসকে।

২০১৯ বিশ্বকাপে একটি ম্যাচও না খেলেই ইংল্যান্ড থেকে বাড়ি ফিরতে হল ৩৫ বছরের স্টেইনকে। এই ঘটনায় শোকাহত তাঁর বাবা সক স্টেইন। ছেলের হয়ে আবেগঘন টুইটে তিনি লিখলেন, “আমি জানি ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯ নিয়ে তুমি কতটা উত্তেজিত ছিলে, তোমার জন্য খারাপ লাগছে। আজ আমার মতো অনেকেই তোমার জন্য কাঁদছে। আবার অনেকে খুশিও। মাথা উঁচু করে বাঁচো। অনেক ভালোবাসা।”

প্রসঙ্গত, এখনও পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে ১২৫টি ওয়ানডে খেলেছেন স্টেইন। তাঁর ঝুলিতে রয়েছে ১৯৬টি উইকেট। ৪৪টি টি-টোয়েন্টি খেলে স্টেইন পেয়েছেন ৬১টি উইকেট। সবথেকে নজরকাড়া পারফর্ম্যান্স টেস্টে। মাত্র ৯৬টি টেস্ট খেলে ডেল স্টেইনের সংগ্রহ ৪৩৯টি উইকেট।

মন্তব্য: