আগামীকাল নিউজিল্যান্ডের নেপিয়ারে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে মাঠে নামছে বাংলাদেশ দল। প্রথম বহরে নিউজিল্যান্ড যাওয়া ৮ ক্রিকেটার অকল্যান্ড থেকে নেপিয়ারে গেছেন অনেক আগেই। দ্বিতীয় বহরে পৌঁছানো চার ক্রিকেটার মাশরাফি, তামিম, রুবেল ও সাইফুদ্দীনের গন্তব্যও নেপিয়ার। অকল্যান্ড থেকে নেপিয়ারের দূরত্ব বেশি না হওয়ায় বড় বিমানের বদলে ছোটো বিমানেই পাড়ি দিতে হবে এ পথটুকু।

তবে বিপত্তিটা বাঁধে এখানেই। মাশরাফি ও তামিমের ছোটে বিমানে চড়তে ভীষণ ভয়। কারণ ছোটো বিমানে ঝাকুনিটা একটু বেশি। আর নিউজিল্যান্ডে বাতাসের পরিমাণ বেশি হওয়ায় বড় বিমানেই ঝাকুনি খেতে হয়। আর ছোট বিমানে সেই মাত্রাটা আরো বেড়ে যায়। তাই তামিম ও মাশরাফি ছোট বিমানের না চড়ে সড়কপথে মাইক্রোবাস নিয়ে রওনা দেন নেপিয়ারের উদ্দেশ্যে। যদিও বিমানে যেখানে ১ ঘন্টায় পৌঁছাতে পারতেন সেখানে এই দুই ক্রিকেটারের সময় লাগল ছয় ঘন্টা। ২০১৭ সালে সবশেষ নিউজিল্যান্ড সফরেও এ দুজন একইভাবে সড়কযাত্রা বেছে নিয়েছিলেন।

নেপিয়ারের সিনিক হোটেলে মাহমুদউল্লাহ-মুশফিকরা আগেই গিয়ে উঠেছেন। হোটেলে যাওয়ার পর অবসরে লবিতে ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন মাহমুদউল্লাহ। গতকাল বিকেলে হোটেলে পৌঁছানো মাশরাফি আর তামিমকে তিনিই প্রথম অভ্যর্থনা জানান।

মন্তব্য: