চলতি বিপিএল আসরে তিন পর্বের খেলা শেষে পয়েন্ট টেবিলে সবচেয়ে সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছে চিটাগং ভাইকিংস। সাত ম্যাচে তাদের জয় ছয়টিতে। আর একটি জয় পেলেই সুপার ফোরে তাদের জায়গা নিশ্চিত হবে। তবে এই দলে থাকা আশরাফুল ইসলাম নিজেকে কিছুটা দুর্ভাগা মনে করছেন।

পাঁচ বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আশরাফুলের সামনে বিপিএলই ছিল একমাত্র বড় আসর যেখানে নিজেকে প্রমাণ করে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিজেকে ফেরানোর মঞ্চ। তবে তার দল চিটাগং ভাইকিংস চলতি আসরে সাতটি ম্যাচ খেলে ফেললেও তার জায়গা হয়েছে মাত্র দুটিতে। প্রথম দুই ম্যাচে একাদশে জায়গা পেলেও পরের পাঁচটি ম্যাচেই সাইড বেঞ্চে বসে কাটিয়েছেন তিনি।

নিজের বাদ পড়া নিয়ে আশরাফুল বলেন, ‘আমি একটু দুর্ভাগা তো বটেই। পাঁচ বছর পর এখানে এসেছিলাম, এটা একটা বড় প্লাটফর্ম। আমার জন্য একটু দুর্ভাগ্যই আমি মনে করি, দ্বিতীয় ম্যাচ পরেই দলের কম্বিনেশনের জন্য আমি আর খেলতে পারছি না।’

তিনি যোগ করেন, ‘প্রতিযোগিতা তো সবসময়ই ছিল। আগেও ছিল এখনও। ঘরোয়া ক্রিকেটে আমরা প্রায় ১৮০ জন ক্রিকেটার খেলি। আর বিপিএলে আমাদের প্রতি দলে নেয় ১২ জন করে। আর খেলার সুযোগ পায় ৭ জন করে। এখানে সুযোগ আসলে যারা নিয়মিত খেলে তাদেরই বেশি থাকে। তারপরও অপেক্ষা করছি, যদি একটা সুযোগ পাই। ব্যাটিং খারাপ হচ্ছে না। কারণ শেষ যে ম্যাচে খেলেছি ব্যাটিং খারাপ হয়নি, কিন্তু পরিস্থিতির কারণে এখন খেলতে পারছি না।’ -ব্যাখ্যা করে আরও বললেন আশরাফুল।

চলতি বিপিএলে ২টি ম্যাচ খেলেছেন আশরাফুল। প্রথম ম্যাচে ৩ রান করার পর দ্বিতীয় ম্যাচে করেন ২২ রান। এই ম্যাচে আশরাফুল রান পেলেও তার দল হেরে যায়।

পরবর্তিতে তৃতীয় ম্যাচে তার জায়গায় চিটাগংয়ের একাদশে জায়গা পান ইয়াসির আলি রাব্বি। সুযোগ পেয়েই খুলনা টাইটান্সের বিপক্ষে খেলেন ৪১ রানের ইনিংস। এখন পর্যন্ত ৫ ম্যাচে ১টি ফিফটি সহ করেছেন ১১৭ রান।

মন্তব্য: